মানিকগঞ্জে পোশাক শ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ, পুলিশের লাঠিচার্জ

মঞ্জুর রহমান, মানিকগঞ্জ থেকে
| আপডেট : ১০ জানুয়ারি ২০১৭, ১৯:৩৮ | প্রকাশিত : ১০ জানুয়ারি ২০১৭, ১৯:১২

নির্দিষ্ট সময়ে বেতন না দেয়া এবং শ্রমিক নির্যাতনের প্রতিবাদে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক প্রায় ৪০ মিনিট অবরোধ করে রাখে মানিকগঞ্জের মুন্নু এ্যাটিয়ার লিমিটেড এর শ্রমিকরা। এ সময় মহাসড়কের দুই পাশে আটকে পড়ে শতাধিক যানবাহন। পরে ঘিওর থানা ও গিলন্ড ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শ্রমিকদের ওপর লাঠিচার্জ করে সরিয়ে দিয়ে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। পুলিশের লাঠি চার্জে আহত হয় ৪/৫ জন শ্রমিক। আহতদের স্থানীয় মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মুন্নু এ্যাটিয়ার লিমিটেডের শ্রমিকদের বেতন দেয়ার কথা ৭ তারিখের মধ্যে। কিন্তু মালিকপক্ষ প্রতি মাসে তাদের বেতন পরিশোধ করে ১৮ থেকে ২০ তারিখে। এর জের ধরে আজ দুপর দেড়টার দিকে ঘিওর উপজেলার গিলন্ড এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে বসে পড়েন শ্রমিকরা। এ সময় মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় মালিকপক্ষের লোকজন আগামী  বৃহস্পতিবার চলতি মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধ করার কথা জানালেও শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। এতে উভয় পাশে দীর্ঘ সারিতে যানবাহন আটকে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে  মহাসড়ক থেকে শ্রমিকদের সরে যেতে অনুরোধ করেন। কিন্তু শ্রমিকরা না সরে যাওয়ায় পুলিশ বাধ্য হয়ে তাদের উপর লাঠি চার্জ শুরু করে। এরপর শ্রমিকরা মহাসড়ক থেকে সরে গিয়ে পুলিশ ও মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করা যানবাহনের ওপর ইটপাটখেল নিক্ষেপ করতে থাকে।

এ্যাটিয়ার লিমিটেডের ওয়ার্কার বিথি আক্তার জানান, কারখানার প্রডাকশন ম্যানেজার শামিম (ওভেন) ও সুলতান (নীট) শ্রমিকদের সাথে নিয়মিত দুর্ব্যবহার করেন। তাদের যথা সময়ে বেতন দেয়ার কথা বললে শ্রমিকদের লাঞ্ছিত করেন।

এ্যাটিয়ার লিমিটেডের আরেক শ্রমিক ফারুক হোসেন বলেন, শামিম ও সুলতান অভার টাইমের বেতন আটকে রাখে। বেতন চাইলে চাকরি খাওয়ার ভয় দেখান। আরেক ওয়ার্কার রেবা বলেন, আমাদের ডিসেম্বর মাসের বেতন এখনো পরিশোধ করেনি। চলতি মাসের বেতন কবে দিবে আমরা জানি না। ওয়ার্কার লিজা বলেন, ঠিক সময় বেতন না দিলে আমাদের অনেক সমস্যায় পড়তে হয়। সন্তানদের স্কুলের বেতন দিতে পারি না। ঘর ভাড়া দিতে পারি না। পরিবার নিয়ে সংসার চালাতে আমাদের কষ্ট হয়।

মুন্ন এ্যাটিয়ার লিমিটেডের শ্রমিকদের ওপর লাঠিচার্জের বিষয়ে ঘিওর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, আমাদের কাছে কোনো লাঠি ছিল না। আমারা শ্রমিকদের উপর লাঠিচার্জ করিনি। ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রাখতে রাস্তা থেকে শ্রমিকদের সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মুন্নু গ্রুপ অফ ইন্ডাট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক  আফরোজা খান রিতা ঢাকা টাইসকে বলেন, আমাদের পোশাক কারখানার কোনো শ্রমিকের বেতন বকেয়া নেই। তিনি দাবি করেন, তৃতীয় পক্ষের কেউ শ্রমিকদের উস্কানি দিয়ে রাস্তায় নামিয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, ডিসেম্বর মাসের বেতন আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে পোশাক শ্রমিকদের পরিশোধ করেন। প্রোডাকশন ম্যানেজার শামিম ও সুলতান সর্ম্পকে তিনি বলেন, সুলতান ও শামিম দীর্ঘদিন ধরে মুন্নুতে চাকরি করেন। আমরা তাদের চিনি। তার দাবি সুলতান ও শামিম শ্রমিকদের সাথে খারাপ আচরণ করতেই পারেন না।

(ঢাকাটাইমস/১০জানুয়ারি/প্রতিনিধি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত