কুমিল্লা সদর উপনির্বাচনে বিএনপি কেন হারল

মাসুদ আলম, কুমিল্লা প্রতিনিধি
 | প্রকাশিত : ০৭ মার্চ ২০১৭, ১৬:৩৮

কুমিল্লা সদর উপজেলার উপনির্বাচনে এজেন্টদের কেন্দ্রে যেতে না দেওয়া ও জাল ভোটের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বলে অভিযোগ বিএনপির প্রার্থীর। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী দাবি করছেন, বিএনপির এজেন্ট দেয়ার লোক নেই এমনকি ভোটারই নেই।

কুমিল্লা মহানগরবাসীর মুখে মুখে যখন সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনের কথা, সেই সময়ে অনেকটা নীরবেই সোমবার শেষ হলো কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলা উপনির্বাচনের ভোট। তাতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম টুটুল ২৬ হাজার ৭৪৬ ভোটের ব্যবধানে হারান বিএনপির প্রার্থী মো. রেজাউল কাইয়ুমকে।

এমন বিশাল ব্যবধানে হেরে যাওয়ান কারণ কী?
জানতে চাইলে বিএনপি-সমার্থিত ধানের শীষের প্রার্থী মো. রেজাউল কাইয়ুম বলেন, ‘জনগণ ভোটকেন্দ্রে গিয়ে স্বাধীনভাবে ভোট দিতে পারেনি। আওয়ামী লীগ প্রার্থীর নেতাকর্মীরা বেশির ভাগ ভোটকেন্দ্রে আমার এজেন্টদের যেতে দেয়নি। অধিকাংশ কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দিয়েছে। আবার কোনো কোনো কেন্দ্রে এজেন্টদের না যাওয়ার জন্য ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে।

আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে অবৈধ ভোটের অভিযোগ করে রেজাউল কাইয়ুম বলেন, ‘শুধু তাই নয়, কিছু কিছু কেন্দ্রে পুলিশ ও প্রিজাইডিং কর্মকর্তারা দাঁড়িয়ে থেকে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন শ্রেণির নেতাকর্মীকে জাল ভোট দিতে সহায়তা করেছেন।’

এ ব্যাপারে নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে অভিযোগ করেও ফল হয়নি বলে দাবি করেন বিএনপির প্রার্থী। তিনি বলেন, ‘আমি সাথে সাথে নির্বাচন কর্মকর্তাদের মৌখিকভাবে অভিযোগ করেছি, কিন্তু তারা আমার কথায় সাড়া দেয়নি। বিকাল বেলায় আমি লিখিতভাবে অভিযোগ করতে গেলে আমাকে উত্তর দেয়, এখন লিখিত অভিযোগ করে কী লাভ? ভোট দেওয়া প্রায় শেষ।’

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আমিনুল ইসলাম টুটুল দাবি করেন, সব কেন্দ্রে বিএনপি এজেন্ট দিতে পারেনি, এটা তাদের ব্যর্থতা। এখন নির্বাচনে হেরে অন্যের ঘাড়ে তুলার বোঝা চাপাতে চাচ্ছে।

টুটুল বলেন, ‘বিএনপির প্রতি আস্থা নেই দলীয় নেতাকর্মীদের। তাই তারা নির্বাচনের সবগুলো কেন্দ্রে এজেন্ট দিতে পারেনি। তাদের তো ভোটারই নেই!’ বিএনপির ১৯ হাজার ৩৫৩ ভোটের মধ্যে ৮ হাজারের মতো ভোট জামায়াতের বলে মনে করেন তিনি।

মানুষ উন্নয়ন ও সেবা চায় এবং সেটা তিনি দিতে পারবেন বলে দাবি করেন টুটুল। তিনি বলেন, ‘গত ১ বছর ধরে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হয়ে আদর্শ সদর উপজেলাবাসীর সুখে-দুঃখে পাশে ছিলাম।’ এ বিশাল ব্যবধানে বিজয় আওয়ামী লীগের সব শ্রেণীর নেতাকর্মীর পরিশ্রমের ফসল বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সোমবার কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম টুটুল মোট ভোট পান ৪৬ হাজার ৯৯। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মনোনীত প্রার্থী রেজাউল কাইয়ুম পেয়েছেন ১৯ হাজার ৩৫৩ ভোট। সোমবার সন্ধ্যায় জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা খোরশেদ আলম এ ফলাফল ঘোষণা করেন।
নির্বাচন কর্মকর্তাদের তথ্যমতে, এ উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে ৩৪.৭৪ শতাংশ।

(ঢাকাটাইমস/৭মার্চ/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত