বিকৃত ইতিহাস গ্রহণযোগ্য নয় : ড. গওহর রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৭, ১৬:১৩

ইচ্ছেমতো ইতিহাস লেখা যায় না। ছাত্রজীবনে ইতিহাসের শিক্ষকরা সবসময় তথ্য-উপাত্ত নিয়ে ইতিহাস রচনা করতে বলতেন। অথচ দেশে এমন একটি প্রবণতা দেখা যাচ্ছে- বক্তব্য দিয়ে ইতিহাস বিকৃতি করা। এটা গ্রহণযোগ্য নয়। এসব কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী।

আজ সকালে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর ও বাংলাদেশ আরকাইভস ম্যানেজমেন্ট সোসাইটির (বারমস) একটি সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন তিনি। রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনের এই অনুষ্ঠানে ড. গওহর রিজভী আরো বলেন, জাতীয় রেকর্ডস সংরক্ষণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে তাগিদ দিতে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হবে। খসড়া আরকাইভস আইন যাতে দ্রুত চূড়ান্ত হয়, তার জন্যে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলেন তিনি।

উন্নত বিশ্বে আরকাইভস বিজ্ঞান অনেক এগিয়ে গেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা বলেন, আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নির্ভর আরকাইভস ব্যবস্থা বাংলাদেশেও চালু করতে হবে। তার জন্যে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। আরকাইভস ডিজিটালাইজড হতে হবে। এভাবে ইতিহাস বিকৃতি প্রতিরোধ করা সম্ভব বলে তিনি মনে করেন।

আলোচনাসভাটিতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক (ডিজি) ফয়জুল লতিফ চৌধুরী ও বাংলাদেশ জাতীয় আর্কাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তরের পরিচালক মো. মজিবর রহমান আল-মামুন।

‘বাংলাদেশ আরকাইভস- বর্তমান ও ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক এই সেমিনারের সভাপতি ছিলেন বারমসের সভাপতি এবং বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির ভাইস প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ড. শরীফ উদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের ডিজি ফয়জুল লতিফ চৌধুরী এবং বারমসের সাধারণ সম্পাদক জালাল আহমেদ। সেমিনারে বিশেষ প্রবন্ধ পাঠ করেন বারমসের সভাপতি ড. শরীফ উদ্দিন আহমেদ, গবেষক মো. লুৎফল হক, অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবুর রহমান, অধ্যাপক ড. আবু মো. ইকবাল রুমি শাহ্ এবং ড. শামসুল হোসাইন। সেমিনারে আরো বক্তব্য দেন বারমসের সহসভাপতি ড. মো. হাফিজুর রহমান ভূইয়া।

আলোচকরা বলেন, দেশের অতীত গৌরব তুলে ধরতে নথিপত্র সংরক্ষণের কোনো বিকল্প নেই। এজন্য সরকারি-বেসরকারি সব ক্ষেত্রের সবাইকে সচেতন হতে হবে। দেশের আরকাইভস আইন চূড়ান্ত করে, তা বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। নথিপত্র সংরক্ষণ কাজে সরকারি দপ্তরগুলোয় লোকবল সংকট দূর করার দাবি করেন তারা।

সেমিনারের সভাপতি ড. শরীফ উদ্দিন আহমেদ বলেন, সরকারি দপ্তরগুলোর রেকর্ডপত্র যাতে জাতীয় আরকাইভসে পাঠানো হয়, তার জন্য সরকারি উর্ধ্বতন মহলকে উদ্যোগী হতে হবে। এ বিষয়ে ইতিহাসপ্রেমী হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সদিচ্ছার কোনো ঘাটতি নেই বলে তিনি মনে করেন।

সেমিনারের আলোচনা শুরুর আগে বারমসের ২০১৭-২০১৮ দ্বিবার্ষিক নতুন নির্বাহী কমিটির ঘোষণা করা হয়। এছাড়া প্রধান অতিথি সেমিনারের বিশেষ প্রকাশনার মোড়ক উন্মোচন করেন।

ঢাকাটাইমস/১৮মার্চ/টিএমএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত