ব্যাংকগুলোর শাখা আরও বাড়ানো উচিত: অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ মার্চ ২০১৭, ২৩:২৯ | প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৭, ২২:৪৮

দেশে রাষ্ট্রায়ত্ব ও বেসরকারি যেসব ব্যাংক আছে এগুলোর শাখা আরও বাড়ানো উচিত বলে মনে করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। তিনি বলেন, ‘এখন ৯৩ হাজার গ্রাম আছে। আমাদের মৌজা আছে ৫৪ হাজার। এর মধ্যে বিভিন্ন ব্যাংকের শাখা আছে মাত্র আট হাজার। দেশে এখন ব্যাংক রয়েছে ৫৬টি। যার মধ্যে ৩৯টি বেসরকারি। তাই ব্যাংকগুলোর শাখা আরও বাড়ানো উচিত।

সোমবার রাতে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘মেঘনা ব্যাংক ট্যাপ ও পে’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব বলেন।

অর্থমন্ত্রী জানান, দেশে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দিচ্ছে ১০ বা ১১টি ব্যাংক। আমাদের দেশে মোবাইল গ্রাহক সংখ্যা ১৩ কোটি। আর সেখানে বছরে ২৫ হাজার কোটি টাকা লেনদেন হয়।

মেঘনা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানায়, ব্যাংকের এই সেবার মাধ্যমে ব্যাংকিং ব্যবস্থার বাইরে থাকা বিশাল জনগোষ্ঠীকে ব্যাংকের শাখা ছাড়াই এবং স্বল্প খরচে ব্যাংকিং সেবা দিতে পারবে। এই সেবার মাধ্যমে গ্রাহকরা টাকা প্রদান, গ্রহণ, সঞ্চয়, কেনাকাটাসহ মোবাইলের রিচার্জ খুব সহজেই করতে পারবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, মেঘনা ব্যাংক ট্যাপ ও পে সেবা প্রিপেইড কার্ড সম্বলিত অত্যাধুনিক নিরাপদ মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস যা বাংলাদেশের প্রথম চিপ বেইজড এনএফসি কার্ড সম্বলিত মোবাইল ব্যাংকিং।

মেঘনা ব্যাংক লি. এবং মোবিলিটি আই ট্যাপ পে বাংলাদেশ লি. যৌথভাবে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা পরিচালনার উদ্দেশ্যে একটি প্লাটফর্ম গঠন করেছে বলেও জানানো হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপাস্থিত ছিলেন তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক ও কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম এমপি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বর্তমানে দেশে সরকার ৬৪ থেকে ৬৫ হাজার কোটি টাকা দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর সামাজিক নিরাপত্তা খাতে ব্যয় করে থাকে। ভবিষ্যতে ওই পুরো টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

অনুষ্ঠানে মেঘনা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নুরুল আমিন, মোবিলিটি আই ট্যাপ পে লিমিটেডের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন, পরিচালক কর্নেল এম এ লতিফ খান, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. কামরুল আহসানসহ ব্যাংকটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/২০মার্চ/জেআর/এসও/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত