ইউপি নির্বাচনোত্তর সহিংসতা: মামলা আতঙ্কে মধ্যনগরবাসী

এম লুৎফর রহমান, নরসিংদী
 | প্রকাশিত : ০৪ এপ্রিল ২০১৭, ১৯:০৬

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার চরাঞ্চল পাড়াতলী একটি ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নে নির্বাচনের পর সহিংসতায় একজন নিহত হন। তার নাম মঙ্গল মিয়া। আহত হন প্রায় অর্ধশতাধিক।

এ ঘটনায় সরকারি ও বেসরকারি চাকরিজীবীসহ ৩৩ জনকেও আসামি করা হয়েছে। এমন ঘটনায় এলাকার সাধারণ মানুষও মামলা আতঙ্কে আছেন।

সরেজমিনে জানা গেছে,  এই মামলার ১৫ নং আসামি জাকির হোসেন একজন চাকরিজীবী। তিনি বেক্সিমকোতে কর্মরত।

জাকির হোসেন অভিযোগ করেন, ‘গত ঈদুল আজহার ছুটির পর থেকে এলাকায় যাওয়া হয় না। কিন্তু আমাকেও এই মামলায় জড়ানো হয়েছে।’

মামলার ৩৩নং আসামি শাহ আলম সরকারি চাকরি নিয়ে এলাকার বাইরে আছেন বলে জানা গেছে। তাকেও মামলায় আসামি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা ঢাকাটাইমসকে জানায়,  ‘আমরা খুবই আতঙ্কে বসবাস করছি।’

নিহত মঙ্গল মিয়ার স্ত্রী জানান, ‘২৮ মার্চ  বিকাল প্রায় পৌণে তিনটার দিকে চেয়ারম্যান প্রার্থী জাকির হোসেন ও  সাবেক চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান মাছুর কর্মী-সর্মথকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। পুলিশ আসার পর বিকাল ৫টার দিকে সংঘর্ষ বন্ধ হয়।’

তিনি জানান, ‘তার স্বামী বাড়িতে ছিল। মাগরিবের নামাজের পর জমদ্দার বাড়ির লোক তাকে তাদের সাথে খাওয়া-দাওয়ার কথা বলে নিয়ে যায়। আমার স্বামীর মৃত্যুর খবর পাই এশার  নামাজের পর। সে তো ঝগড়ায় যায় নাই।’

তা হলে মারা গেল কিভাবে? তিনি বলেন, ‘আমাকে বেশি কোন প্রশ্ন করবেন না। দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর ঝগড়ার কারণেই আমার স্বামী মারা যায়। আমি আল্লার কাছে এর বিচার চাই।’

সাবেক চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান মাছুর সাথে মঠোফোনে কথা বলতে চাইলে তিনি বারবার লাইন কেটে দেন। একপর্যায়ে তাকে কথা বলার জন্য অনুরোধ করা হলে তিনি পরে কথা বলবেন বলে ফোন বন্ধ করে দেন।

বর্তমান চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজহারুল ইসলাম সরকার জানান, ‘সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে।’

এলাকাবাসী এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানান।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৭ মে পাড়াতলী ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ৭ মে মধ্যনগর গ্রামের হোসেন আলী নিহত হন। যা নিয়ে রায়পুরা থানায় একটি হত্যা মামলা করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৮ মার্চ বিকালে প্রার্থী জাকির হোসেন ও সাবেক চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান মাসুর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে মধ্যনগর গ্রামের মঙ্গল মিয়া নিহত হন। এ ব্যাপারেও রায়পুরা থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু হয়েছে। এতে সরকারি ও বেসরকারি চাকরিজীবীসহ ৩৩ জনকে আসামি করা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/৪এপ্রিল/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত