বঙ্গবন্ধু কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসির দাবিতে আন্দোলন চলছেই

গাজীপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৫ এপ্রিল ২০১৭, ১৬:৪০

গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ে উপাচার্য (ভিসি) নিয়োগের দাবিতে শিক্ষকদের আন্দোলন চলছে। গত ১৯ মার্চ থেকে প্রতিদিন বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষকরা।

এরই ধারাবাহিকতায় শনিবারও অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। অধ্যাপক মো. আবদুল মান্নান আকন্দের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন কৃষিতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আরিফুর রহমান খান, বায়োটেকনোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. তোফাজ্জল ইসলাম।

অধ্যাপক এম কামরুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তারা সদ্য সাবেক ভিসি মাহবুবর রহমানের পুনর্নিয়োগ বন্ধ করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। পাশাপাশি বিশ^বিদ্যালয়ে কর্মরত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ^াসী এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্থাশীল সিনিয়র শিক্ষকদের মধ্য থেকে একজনকে অবিলম্বে নতুন ভিসি নিয়োগ দেয়ার দাবি জানান।
এদিকে মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নতুন ভিসি না আসায় স্থবির হয়ে পড়েছে প্রশাসনিক কার্যক্রম। মাস খানেক ধরে ভিসি না থাকায় আর্থিক খাতসহ বেতন-ভাতা পরিশোধ নিয়েও দেখা দিয়েছে নানা অনিশ্চয়তা।

শিক্ষকদের এই কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে বিশ^বিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধুর আদর্শের গণতান্ত্রিক কর্মকর্তা পরিষদ এবং গণতান্ত্রিক কর্মচারী পরিষদের ব্যানারে অংশ নিচ্ছেন।

অচলাবস্থা কাটিয়ে শিগগির নতুন উপাচার্য নিয়োগের দাবি করেছেন বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।
গাজীপুরের পোড়াবাড়ি এলাকায় অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ^বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর কৃষিক্ষেত্রে নতুন নতুন জাত উদ্ভাবন এবং গবেষণায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। কিন্তু বিশ^বিদ্যালয়টির উপাচার্যের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর নতুন ভিসি নিয়োগ না দেয়ায় প্রশাসনিক কার্যক্রমে দেখা দিয়েছে জটিলতা। এ অবস্থায় শিক্ষকদের বেতনভাতা পরিশোধ এবং অন্যান্য লেনদেনসহ দাপ্তরিক কাজ নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে।

নতুন ভিসি নিয়োগ না হওয়ায় কোনো কাজ করতে পারছেন না জানিয়ে  রেজিস্ট্রার অধ্যাপক মো. মইনুল হক জানান, ভিসির অনুমোদন ছাড়া রেজিস্ট্রার কোনো দাপ্তরিক কাজ করতে পারেন না।  

আগের ভিসি অধ্যাপক মাহবুবর রহমানের মেয়াদ শেষ হয় গত ১৯ মার্চ। তাকে পুনরায় নিয়োগ দেয়াকে কেন্দ্র করে প্রগতিশীল শিক্ষার্থীদৈর একটি অংশ আন্দোলনে নামেন। মানববন্ধন, মৌন মিছিলসহ টানা আন্দোলনের কারণে ওই ভিসির নিয়োগ প্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়। এ অবস্থায় প্রগতিশীল ও স্বাধীনতার চেতনায় বিশ^াসী নুতন ভিসি নিয়োগ দেয়ার দাবি করছেন আন্দোলনরতরা।
এই বিশ^বিদ্যালয়ে বর্তমানে ১২ শতাধিক শিক্ষার্থী এবং ১৯২ জন শিক্ষক রয়েছেন।

(ঢাকাটাইমস/১৫এপ্রিল/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত