সাহসী তাহমিনার উদ্যোগেই পণ্ড বাল্যবিয়ে

পিরোজপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ মে ২০১৭, ১১:০৭

বাল্যবিয়ে বন্ধ করতে নানা প্রচারণমূলক কাজ করে ইতোমধ্যে দেশব্যাপী আলোচনা এসেছেন তিনি। বাল্যবিয়েকে লালকার্ড দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের সচেতন করতে সাইকেল চালিয়ে ছুটে যান এক স্কুল থেকে আরেক স্কুলে। এবার সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করে আবারো আলোচনায় আসলেন পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার তাহমিনা কেউন্দিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাহসী তাহমিনা। আর তার এমন এই উদ্যোগে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পায় স্কুলছাত্রী সাবিনা।

উপজেলার কুমিয়ান গ্রামের দিনমজুর আবুল হোসেন মাঝির মেয়ে ও কাউখালী আদর্শ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী সাবিনার সঙ্গে উপজেলার চিরাপাড়া গুচ্ছগ্রামের দিনমজুর জয়নালের ছেলে সাগর হোসেনের বিয়ের দিন ঠিক ছিল শুক্রবার। বিয়ে আয়োজনের জন্য দুই পক্ষই প্রস্ততি নিয়েছিল। বৃহস্পতিবার বিয়ের বাজার শেষে কনের বাড়িতে গান-বাজনার ধুমধাম চলছিল।

বাল্যবিয়ে দেয়ার খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সামসুদ্দোহা চান ও সামাজিক উদ্যোক্তা আব্দুল লতিফ খসরুকে সঙ্গে নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিয়েবাড়িতে উপস্থিত হন তাহমিনা। পরে মেয়ের অভিভাবকদের বুঝিয়ে বাল্যবিয়ের হাত থেকে সাবিনাকে রক্ষা করেন। পরে বরপক্ষকে জানিয়ে দেওয়া হয় সমাজ ও প্রশাসনের নির্দেশে সাবিনা আর সাগরের বিয়ে হচ্ছে না।

বাল্যবিয়ে থেকে মেয়েদের রক্ষা করতে তাহমিনার এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে উপজেলাবাসী।  তার এমন উদ্যোগের ফলে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়বে বলে মনে করেন সচেতন মানুষ।

বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পাওয়া সাবিনার লেখাপড়াসহ সকল দায়িত্ব নিয়েছেন শিক্ষানুরাগী আব্দুল লতিফ খসরু।

ঢাকাটাইমস/১৯মে/প্রতিনিধি/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত