বনানী ধর্ষণে আ.লীগের মদদ দেখছেন মওদুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৯ মে ২০১৭, ২১:৪৪ | প্রকাশিত : ১৯ মে ২০১৭, ১৫:০৬

বনানীতে একটি হোটেলে দুই তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় সরকারি দলের মদদ দেখছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদ। তিনি বলেছেন, ‘দেশের সব সামাজিক অপরাধের পেছনে কোনো না কোনোভাবে সরকারি দলের লোকদের মদদ আছে। বনানীতে হোটেলে দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর ধর্ষণের ঘটনা তার প্রমাণ।’

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক জোট নামে একটি সংগঠন আয়োজিত ‘বেগম খালেদা ঘোষিত ভিশন-২০৩০, আগামী দিনের রাজনীতি, আমাদের করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় মওদুদ এ কথা বলেন।

বনানীর হোটেল রেইনট্রিতে জন্মদিনের দাওয়াতে নিয়ে দুই তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় চলছে গত দুই সপ্তাহ ধরেই। এক তরুণীর মামলার পর পুলিশ প্রধান আসামি আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ সেলিমের ছেলে সাফাত আহমেদসহ পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

এই হোটেলটি ঝালকাঠির আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য বিএইচ হারুনের ছেলে শাহ মো. আদনান হারুন এই হোটেলটি চালান। বনানীর যে এলাকায় এই হোটেলটি অবস্থিত, সেখানে বাণিজ্যিক স্থাপনা তৈরির অনুমোদন নেই।

বর্তমানে বিচার বিভাগ কাগজে-কলমেই কেবল স্বাধীন- এমন দাবি করে ‘স্বাধীনতা প্রতিষ্ঠায়’ প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ‘প্রচেষ্টা’র প্রশংসাও করেন মওদুদ। বলেন, ‘প্রধান বিচারপতি বিচার বিভাগের স্বাধীনতা পুরোপুরি প্রতিষ্ঠিত করতে চেষ্টা করতেছেন। এজন্য তার প্রশংসা করা উচিত। তার এই প্রচেষ্টা সফল হোক এটাই চাই।’

সম্প্রতি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ঘোষিত ভিশন-২০৩০ এর নানা দিকের কথা উল্লেখ বিএনপি নেতা বলেন, ‘আমরা ক্ষমতায় গেলে বিচার বিভাগকে কীভাবে দেখতে চাই সে কথা বলা হয়েছে। আমরা ক্ষমতায় গেলে বিচার বিভাগ হবে সম্পূর্ণ স্বাধীন। বিচারপতিরাও হবেন স্বাধীন। সংবিধানের দেয়া ক্ষমতা তারা নির্ভয়ে পালন করবেন।’

মওদুদ বলেন, ‘বিচার বিভাগের স্বাধীনতা আছে কাগজে কলমে। বিচারকরাও স্বাধীন কি না তা নিয়ে জনগণের মধ্যে প্রশ্ন আছে।’

বিএনপির ভিশন-২০৩০ এর প্রশংসা করে মুওদুদ বলেন, ‘আমরা হয়তো থাকব না, কিন্তু এই দলিল থাকবে। এটাকে রূপকল্প বলা যেতে পারে। এটা অত্যন্ত বলিষ্ঠ, ইতিবাচক ও সুদূরপ্রসারী রাজনৈতিক দলিল। এটা গণমানুষের জন্য রূপকল্প। এটা বাস্তবায়নের জন্য এখন থেকেই আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে।’

বিএনপি নেতা বলেন, ‘নির্বাচনের প্রায় দেড় বছর আগে এটা দেয়ার কারণ হলো আমাদের সামনে একটা দলিল থাকল। ক্ষমতায় গেলে আমরা এইভাবে করে কাজ করব।’

দশম সংসদ নির্বাচন একতরফা হলেও বাংলাদেশে এমন নির্বাচন আর হবে না বলেও জানান মওদুদ আহমদ। বলেন, ‘আমরা যে কোনো সময় নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত। কিন্তু সেই নির্বাচন হতে হবে রাজনৈতিক অভিলাস নেই এমন নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে। আমরা সেই নির্বাচনে যাব এবং জনগণের ভোটে ক্ষমতায় এসে জনগণের অধিকার ফিরিয়ে আনব।’

(ঢাকাটাইমস/১৯মে/বিইউ/ডব্লিউবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত