দলীয় প্রতীকে শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন!

ব্যুরো প্রধান, রাজশাহী
 | প্রকাশিত : ১৯ মে ২০১৭, ২২:০৮

নৌকা, লাঙল, মশাল, টেলিভিশন, গামছা ও বটগাছের মতো দলীয় প্রতীক ব্যবহার করে অনুষ্ঠিত হচ্ছে রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন। দলীয় নির্বাচন ছাড়া এসব প্রতীক ব্যবহারের সুযোগ না থাকলেও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা তাই করেছেন।

নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়েছেন সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মাহাতাব হোসেন চৌধুরী। এ নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

লাঙল প্রতীক নিয়েছেন সাজেদুর রহমান স্বাধীন নামে আরেক শ্রমিক নেতা। এ নিয়ে জাতীয় পার্টির নেতারাও বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন। নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকও ছিল। তবে কোনো প্রার্থী তা নেননি।

নির্বাচন পরিচালনা কমিটি সূত্রে জানা গেছে, বুধবার নগরীর শিরোইল বাস টার্মিনালে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট চলবে। নির্বাচনে মোট পদসংখ্যা ১১টি। এরমধ্যে দপ্তর সম্পাদক পদে একজন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বাকি ১০ পদের জন্য লড়ছেন ৬৬ জন প্রার্থী।

এদের মধ্যে থেকে ১০-১৫ জন প্রার্থী বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের দলীয় প্রতীক ব্যবহার করছেন।

নির্বাচনকে ঘিরে ইতোমধ্যে নগরীর প্রতিটি প্রান্ত ছেঁয়ে গেছে ব্যানার, পোস্টার ও ফেস্টুনে। দেয়ালে পোস্টার লাগানোর কোনো নিয়ম না থাকলেও এই নির্বাচনে সে ধরনের বাধ্যবাধকতা নেই। ফলে বাড়ি ও দোকানের দেয়াল ছেঁয়ে গেছে পোস্টারে। বাস টার্মিনালে মাহাতাব হোসেন চৌধুরীর নৌকা প্রতীকের ফেস্টুন ঝুলছে। কাঠ ও কাপড় দিয়ে তৈরি একটি নৌকাও সাজিয়ে রাখা হয়েছে সেখানে।

এই নির্বাচনে কেউ কেউ সাদাকালো পোস্টারিং করেছেন। আবার কেউ কেউ রঙিন পোস্টার ব্যবহার করেছেন। নির্বাচনের সভাপতি পদের প্রার্থী কামাল হোসেন রবি তো তার পোস্টারের দুই জায়গায় নিজের টেলিভিশন প্রতীক বসিয়েছেন। ভিন্ন ভিন্ন আঙ্গিকে টেলিভিশনের ভেতর শোভা পাচ্ছে তার নিজের দুটি ছবি!

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহাতাব হোসেন চৌধুরী মহানগর আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক। শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনে তিনিই ব্যবহার করেছেন নৌকা প্রতীক। বিষয়টি কিভাবে দেখছে আওয়ামী লীগ, জানতে চাইলে দলের মহানগরের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার বলেন, এ নিয়ে তারা বিব্রত।

তিনি বলেন, এর আগেও শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনে দলীয় প্রতীক ব্যবহার করা হয়েছে। কিন্তু এসব ছোটখাটো নির্বাচনে দলীয় প্রতীক ব্যবহার দৃষ্টিকটু। এ নিয়ে আমরা খুবই বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছি। তাই দলের পক্ষ থেকে নির্বাচনের সব প্রার্থীকেই ডেকে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা নির্বাচন কমিশনের সাথেও কথা বলছি।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা সৈয়দ আমিরুল ইসলাম বলেন, সংগঠনের নির্বাচনে দলীয় প্রতীক ব্যবহারের বিষয়টি আমাদের এখতিয়ারের বাইরে। তবে এসব নির্বাচনে দলীয় প্রতীক ব্যবহার উচিৎ নয়। বিষয়টি নৈতিকতার ব্যাপার। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির উচিৎ হয়নি এ ধরনের নির্বাচনে দলীয় প্রতীক বরাদ্দ করা।

নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট অঙ্কুর সেন বলেন, জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের গত নির্বাচনেও অন্য প্রতীকের পাশাপাশি দলীয় প্রতীক ব্যবহার করা হয়েছিল। তখন এ নিয়ে কেউ কোনো আপত্তি করেননি। তাই এবারও ১০-১২টি পদের প্রার্থীদের মাঝে দলীয় প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে।

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের বর্তমান কমিটির সভাপতি কামাল হোসেন রবি ও সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব হোসেন চৌধুরী এই নির্বাচনেও একই পদে লড়ছেন।

ত্রি-বার্ষিক এই নির্বাচনে তারা দুজনই ব্যবহার করেছেন দলীয় প্রতীক। এ বিষয়ে কথা বলতে শুক্রবার রাতে তাদের মুঠোফোনে ফোন করা হয়। তবে তারা কেউ ফোন ধরেননি।

(ঢাকাটাইমস/১৯মে/আরআর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত