‘নির্বাচনের আগে আলোচনার কথা সংবিধানে কোথাও নেই’

এন এইচ সাজ্জাদ, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ মে ২০১৭, ২২:১৭

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেছেন,  ‘বিএনপি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এলে আসবে না এলে না আসবে। সংবিধানের কোথাও নেই, নির্বাচনের আগে আলোচনায় বসতে হবে। যে দলের ইচ্ছা হবে, সে দল নির্বাচন করবে।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩৭তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ দক্ষিণ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ সেলিম বলেন, ‘পেট্রলবোমায় দেড়শ লোককে হত্যা করা হয়েছে। প্রায় ৫০০ লোক এখনো মানবেতর জীবনযাপন করছে। তিনি (খালেদা জিয়া) মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছেন। তার বিচার হবে। ৪৬ বছর পর যদি মানবতাবিরোধীদের বিচার হয়ে থাকে তাহলে খালেদা জিয়ারও এই হত্যাকাণ্ডের জন্য বিচার হবে।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর কোনোদিন আসবে না। কোনো অনির্বাচিত সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন হবে না। এটা সুপ্রিম কোর্টের রায়ে বলা আছে।’

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘একবার তো না কইরা, নাকে খত দিয়া এখন খালি আলোচনা আর আলোচনা…। শেখ হাসিনা যখন আলোচনার কথা বলল তখন তো শেখ হাসিনাকে অসম্মান ও অপমান করেছেন।’

এরা পাকিস্তানি এজেন্ট’ দাবি করে শেখ সেলিম বলেন, ‘আর যদি ওই ধরনের কোনো হত্যাযজ্ঞ চালাবার চেষ্টা করেন জনগণ রুখে দেবে। জনগণই আপনাদের গণপিটুনি দেবে। আপনারা দেশেও টিকতে পারবেন না। পাকিস্তানেও পালিয়ে যেতে পারবেন না।’

ছাত্রলীগ নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ শেষ করার জন্য বেঁচে আছেন। না হলে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট পিতা-মাতার সঙ্গে নিহত হতেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলব।’ পাশাপাশি ছাত্রলীগ নেতাদের ঐক্যবদ্ধভাবে সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলার আহ্বান জানান।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে বাঙালির  ভাগ্যকে নতুনভাবে লেখা হয়েছিল। তার প্রত্যাবর্তনের ফলে বাঙালি ডিজিটাল বাংলাদেশ তথা নতুন এক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিল।’

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নিজ সংগঠনের প্রশংসা করে বলেন, ‘ছাত্রলীগ হলো সবচেয়ে জনপ্রিয় মেধাবী ছাত্রদের সংগঠন। বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া এই সংগঠনের নেতা-কর্মীরা সবসময় সাধারণ মানু্ষের কথা বলে, সাধারণ মানুষের পক্ষে কাজ করে এবং ভবিষ্যতেও করবে।’

জাকির ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে হলে ছাত্রলীগের প্রত্যেকটি নেতাকর্মীকে মেধাবীর পরিচয় দিতে হবে, ভালোভাবে লেখাপড়া করতে হবে, সাধারণ মানু্ষের সাথে মিশতে হবে, তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে।’

জাকির বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যে উন্নয়নের জোয়ার বাংলাদেশে বইছে তা ভবিষ্যতেও অব্যাহত রাখতে হবে।  এই  লক্ষ্য বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে কাজ করে যেতে হবে, এই সরকারের অনেক উন্নয়নমূলক কাজ রয়েছে, তা সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরে হবে। তাদের বুঝাতে হবে আওয়ামী লীগ সরকার দেশের উন্নয়ন চায়, আওয়ামী লীগ সরকার সাধারণ মানুষের কথা বলে।’

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মো. বায়জিদ আহমেদ খান। সঞ্চালনা করেন শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান আসাদ।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি কাজী এনায়েত,  প্রচার সম্পাদক সাইফ উদ্দিন বাবু, আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. ইমরান খান, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/১৯মে/সাজ্জাদ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত