‘খালেদাকে বিরোধী নেত্রী হিসেবেও মানা যায় না’

নরসিংদী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৪ মে ২০১৭, ২০:৫৬

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া একজন জঙ্গি নেত্রী। তিনি কখনো আগুন নেত্রী, কখনো বোম নেত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন। তিনি জামায়াত-শিবির ও তেতুল হুজুরকে নিয়ে দেশের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করছেন। তাকে যেমন ক্ষমতার আসনে বসানো যায় না, তেমনই তাকে বিরোধী দলীয় নেত্রী হিসেবেও মেনে নেয়া যায় না।

নরসিংদীর পাঁচদোনায় বুধবার জাসদের (ইনু) সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রবল বিরোধিতার মুখে পুলিশি নিরাপত্তায় এ সমাবেশ হয়।

ইনু বলেন, ‘তিনি ২০০৮ সালের নির্বাচনে হেরে গিয়ে জামায়াত-শিবির রাজাকার নিয়ে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন। তিনি এখনও জামায়াত-শিবিরের সঙ্গ ত্যাগ করতে পারেননি। খালেদা জিয়া তার অপকর্মের জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চাননি, তওবা করেননি। তিনি সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে বাধার সৃষ্টি করছেন। সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হবার পরও তিনি রাজাকারদের ছাড়তে পারেননি।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যারা জোটে থেকে সরকারের বিরোধিতা করছে, তাদেরকে চোখবন্ধ করে জোট থেকে বের করে দিতে হবে। পাশাপাশি মহাজোটের শরিক দলসমূহের উপর পারস্পরিক আস্থা বৃদ্ধি করতে হবে।’

‘জাতীয় রাজনীতিতে মিউজিক্যাল চেয়ারের রাজনীতি বন্ধ করতে হবে। একবার মুক্তিযুদ্ধের সরকার ক্ষমতায় আসবে, আরেকবার রাজাকার আলবদরদের সরকার ক্ষমতায় আসবে- এই খেলা বন্ধ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী কোন সরকার ব্যবস্থাকে মেনে নেয়া হবে না’ বলে সাফ জানিয়ে দেন হাসানুল হক ইনু।

তিনি বলেন, ‘জামায়াত-শিবির রাজাকাররা এখনও ক্ষমতায় যাবার জন্য গোপন তৎপরতা চালাচ্ছে, ষড়যন্ত্র করছে। বেগম খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের জন্য হুমকি ও বিপজ্জনক একজন নেত্রী। জঙ্গি সম্পৃক্ততা ত্যাগ না করলে তাকে ক্ষমতায় বসতে দেয়া হবে না।’

‘নিজামী-মুজাহিদদের ফাঁসি হলেও খালেদা জিয়া তার কৃতকর্মের জন্য তওবা করেননি। ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৪ দলীয় জোটকে আরো শক্তিশালী করে জঙ্গিবিরোধী ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানান তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী দলসমূহকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জোটকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। খালেদা জিয়াকে রাজনীতি ও ক্ষমতার বাইরে রাখার শপথ নিতে হবে।’

সভায় সভাপতিত্ব করেন জাসদ’র কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক সম্পাদক ও পলাশ উপজেলা জাসদের সভাপতি জায়েদুল কবির।

বক্তৃতা করেন- জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সম্পাদক শওকত রায়হান, নাট্য ব্যক্তিত্ব নাদের চৌধুরী, জাসদ ছাত্রলীগের সভাপতি সামসুল ইসলাম সুমন, সাধারণ সম্পাদক এহসানুল হক শামীম, জাসদ নেতা জ্যোতিষী বিকাশ, হাবিবুর রহমান শওকত, জাসদ নেতা শফি উদ্দিন মোল্লা, শাহাদাৎ হোসেন মাসুম, মো. কামাল পাশা প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/২৪মে/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর