গাজীপুরের সেই শিক্ষা কর্মকর্তাকে বদলি

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৯ মে ২০১৭, ২১:৩৩

গত ১৮ মে ঢাকাটাইসে ‘প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষক উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশের পর গাজীপুর সদর উপজেলা উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিরাজুল ইসলামকে ফেনী জেলায় বদলি করা হয়েছে। তাকে গত ২৫ মে বদলি করা হয়েছে বলে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার অফিস সূত্রে জানা গেছে।

গাজীপুর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা ঢাকাটাইমসকে জানান, ভবানীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠনে অনিয়মের ঘটনা তদন্ত করে ইতোমধ্যে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে পাঠানো হয়েছে। উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির অনুমোদন শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রদান করা হয়। কমিটি গঠনে অনিয়ম হলে আমরা তদন্ত করে তদন্ত প্রতিবেদন উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে প্রেরণ করে থাকি।

রেবেকা বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রজ্ঞাপন অমান্য করে গাজীপুর সদর উপজেলার সাবেক উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিরাজুল ইসলাম ওই স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করা উচিত হয়নি। এছাড়াও ভবানীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অনিয়ম ও অবস্থাপনার বিষয়ে সম্প্রতি আমার কাছে আবারও লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

মিরাজুল ইসলাম জানান, তাকে কী কারণে বদলি করা হয়েছে এ ব্যাপারে তিনি অবগত নন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, নতুন কর্মস্থলে তিনি এখনো যোগদান করেননি। যোগদানের পূর্বে তিনি গাজীপুরে থাকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও জানান। তবে ইতোমধ্যে গাজীপুর সদর উপজেলা উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে আনন্দময় ভৌমিক যোগদান করেছেন।

প্রসঙ্গত, ঢাকাটাইমসে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বিদ্যালয়ে টেন্ডার বাস্তবায়ন ও মেধা এবং যোগ্যতার ভিক্তিতে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের বিষয়টি প্রকাশিত হয়। এছাড়াও ওই বিদ্যালয়ের সভাপতি নজরুল ইসলাম মাস্টার অন্য আরেকটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হয়েও ভবানীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে দীর্ঘ প্রায় আট বছর ধরে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। অথচ প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে যে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান/সহাকারী শিক্ষক অন্য কোনো বিদ্যালয়ের সভাপতি/সদস্য হতে পারবে না। কিন্তু এ ব্যাপারে মিরাজুল ইসলাম জানার পরও নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে বরং তাকে সহযোগিতা করেছেন বলেও অভিযোগ ওঠেছে। এছাড়াও চলতি বছর ভবানীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে উপজেলা উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিরাজুল ইসলাম প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

গাজীপুর সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হারুন-অর-রশিদ ঢাকাটাইমসকে জানান, নজরুল ইসলামের ব্যাপারে ইতোমধ্যে তিনিও লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। স্কুল খোলা হলে অভিযোগের বিষয়ে শিগগিরই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

(ঢাকাটাইমস/২৯মে/প্রতিনিধি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত