এহন সব কইয়া যামু...

ঝালকাঠি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ৩১ মে ২০১৭, ১৮:০২

ঝালকাঠি শহরে এসেছেন শতবর্ষ ছুঁই ছুঁই বৃদ্ধা শাহবানু। বুধবার বেলা দুইটার দিকে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের (ডিসি) কার্যালয়ের সামনে এসে সাংবাদিক খুঁজতে থাকেন। একটু পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে দেখা হলে তিনি তার অভিযোগ তুলে ধরে বলেন, ‘সাংবাদিক সাব খবরডা পেপারে দিমু। ওরা মোরো মার্ইরা ফালাইতে পারে। এহন সব কইয়া যামু।’

নলছিটি শহরের শীতলপাড়া গ্রামের বাবার বাড়িতে থাকেন ৯৭ বছর বয়স্ক বিধবা শাহবানু। স্বামী মুনসুর আলী ৪৪ বছর আগে মারা যান। এরপর থেকে শাহবানু থাকেন বাবার বাড়ি। ছয় ছেলে ছয় মেয়ের মধ্যে বেঁচে আছেন তিন ছেলে ও দুই মেয়ে।

স্বামীর মৃত্যুর ব্যাপারে শাহবানু সাংবাদিকদের জানান, ১৯৭৩ সালে স্বামী মুনসুর আলীকে তার প্রতিপক্ষরা চিলের গোশত খাইয়ে পাগল বানিয়ে মেরে ফেলে। এরপর স্বামীর বাড়ি ছেড়ে জীবন নিয়ে পালিয়ে পৈতৃক ভিটায় ওঠেন শাহবানু।

ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার সুগন্ধা নদীর তীরবর্তী এলাকার মগড় গ্রামের পাঁচ একর ৪৬ শতাংশ জমি আপন বোন দখল করে নিয়েছে অভিযোগ করে শাহবানু বলেন, তিন ছেলে ও দুই মেয়ে নিয়ে এখন অসহায় জীবন যাপন করছেন তিনি।

স্বামীর বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়িতে ওঠার পর নিজের জীবনের কথা বলতে গিয়ে শাহবানু বলেন, ‘ওখানে প্রথমে কয়েক বছর ভালোভাবে জীবন কাটে। কিন্তু পরে বাধ সাধে আপন বোন হাজেরা বানু। পৈতৃক সম্পত্তি সব একা দখল করতে হাজেরা বানু সব জায়গায় ম্যানেজ করে চলছেন। পৈতৃক সূত্রে পাওয়া শাহবানুর আড়াই কুড়া জমি ছোট বোন হাজেরা দখল করে নেন বলে অভিযোগ শাহবানুর।

এখন নিজের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত শাহবানু। তিনি অভিযোগ করেন, বোন হাজেরার ছেলেরা মোটরসাইকেল মহড়ায় সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে জীবননাশের হুমকি দিচ্ছে শাহবানুকে। ভাতিজা ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালক জলিল ও তার সহযোগীদের ভয়ে ভীত এখন শাহবানু।  

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে নলছিটি ও ঝালকাঠি পুলিশের সহযোগিতা চান শাহবানু। আর বলতে থাকেন, ‘জমিজমা বাবার ও স্বামীর অনেক ছিল, কিন্তু এখন কিছু নাই। সবই মাইনষে খায়। হেই খবরডা পেপারে দিমু। সবাইরে জানাইয়া দেতে চাই। ওরা মোরো মার্ইরা ফালাইতে পারে। এহন সব কইয়া যামু।’

বাড়ি ছেড়ে কখনো নেছারাবাদের তালিমে, আবার কখনো তালিমের সাথী বোনদের সঙ্গেও চলে যান শাহবানু।
কিছুদিন আগে শাহবানুকে প্রাণে মেরে ফেলতে আগুন দেয়া হয় তার ঘরে। যেকোনো সময় তাকে খুন করতে পারে বলে শঙ্কা শাহবানুর। এ জন্য তিনি সাংবাদিকদের সহযোগিতা চান।

শাহবানু আরও জানান, নলছিটি পৌর মেয়র তছলিম চৌধুরীকেও জানানো হয়েছিল; কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। এখন কী করবেন তা ভেবে পাচ্ছেন না তিনি। শেষ বয়সে একটু শান্তিমতো বেঁেচ থাকার সহযোগিতা চান এই প্রায় শতবর্ষী নারী।

(ঢাকাটাইমস/৩১মে/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত