স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৪

গাজীপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৭, ১৮:১২

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার হরিণহাটি এলাকায় স্থানীয় যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে এক নারী শ্রমিককে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে। এ ঘটনায় কালিয়াকৈর থানায় চারজনের নাম উল্লেখসহ নয়জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। ঘটনার পর অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করে গাজীপুর আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার হরিণহাটি এলাকার  ডালিম হোসেন, তার ভাই পৌর যুবলীগ নেতা রাজীব হোসেন, চান্দরা পল্লীবিদ্যুৎ দীঘিরপাড়া এলাকার রবিন দেওয়ান এবং একই এলাকার রিপন হোসেন।

কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মোশারফ হোসেন তুহিন জানান, মামলার বাদীর বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। তিনি তার স্ত্রীকে নিয়ে কালিয়াকৈর উপজেলার হরিণাহাটি এলাকায় থাকতেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় গ্রেপ্তার রবিন তার বাড়িতে রং করার কথা বলে মোবাইলফোনে ওই রং মিস্ত্রিকে ডেকে নিয়ে যান। কথা মতো ওই বাড়িতে গেলে রবিন ও যুবলীগ নেতা রাজীব নিরালায় কথা বলার জন্য ওই বাড়ির দ্বিতীয় তলার ছাদে নিয়ে যান তাকে। ছাদে যাওয়ার সাথে সাথে অভিযুক্তরা তাকে এলোপাথারি মারধর করতে থাকে এবং এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে কৌশলে তারা ওই রং মিস্ত্রীর স্ত্রীকে ওই বাড়ির ছাদে ডেকে নেয়।

রং মিস্ত্রীর স্ত্রীর ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর তাকেও এলোপাথারি মারধর শুরু করে তারা। টাকা না দিলে তার স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণের প্রস্তাব দেয় অভিযুক্তরা। এক পর্যায়ে স্বামী-স্ত্রীর দুইজনকে চোখ বেঁধে আলাদা স্থানে রেখে রং মিস্ত্রীর স্ত্রীকে ৪/৫ জনে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে তাদের ছেড়ে দিলে কালিয়াকৈর থানায় এসে বিষয়টি পুলিশকে জানান। পরে পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে চারজনকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী কালিয়াকৈর থানায় মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্তদের গাজীপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১০জুন/প্রতিনিধি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত