এগিয়ে যাচ্ছে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

মেহেদী জামান লিজন, কনবি
 | প্রকাশিত : ১৪ জুন ২০১৭, ১৩:১১

ময়মনসিংহের ত্রিশালে জাতীয় কবি কাজী নজরুলের নামে প্রতিষ্ঠিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়টি ত্রিশাল উপজেলার অদূরে নামাপাড়া গ্রামে অবস্থিত, যে গ্রামে কবি নজরুল লজিং পার করেছেন শৈশবের কিছু সময়।

বটতলার বটগাছ ঘেঁসে গ্রাম্য পরিবেশের অকৃত্রিম সবুজের ছোঁয়াতে ছোট এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পথচলা শুরু হয়েছিল ২০০৬ সালে । দেখতে দেখতে চলে গিয়েছে ১১টি বছর। ছোট এই কাম্পাসে অনেক সীমাবদ্ধতায় থাকার মাঝেও উন্নয়ন হয়েছে অনেক কিছু।

সাড়ে পাঁচ হাজার শিক্ষার্থীদের প্রাণের ক্যাম্পাসে চারটি অনুষদে বর্তমানে চালু রয়েছে- ১৯টি বিভাগ। বাংলা, ইংরেজি, চারুকলা, নাট্যকলা, সঙ্গীত, চলচিত্র বিষয়ে শিক্ষার্থীরা পড়াশুনা করছে কলা অনুষদের আওতাধীন।

কম্পিউটার প্রকৌশলী, ইলেক্টনিক প্রকৌশলী, পরিবেশ বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান অনুষদের মাধ্যমে পড়াশুনা করছেন।

ব্যবসায় অনুষদেও রয়েছে তিনটি বিভাগ- অ্যাকাউন্টিং এবং ইনফরমেশন সিস্টেম, অর্থ ও ব্যাংকিং, হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট।

অপরদিকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে শিক্ষার্থীরা বর্তমানে সুযোগ পাচ্ছে-  সাতটি বিষয়ে অধ্যয়নের। অর্থনীতি, লোকপ্রশাসন, ফোকলোর, আইন ও বিচার বিভাগ, নৃবিদ্যা, পরিবেশ বিজ্ঞান, স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন  বিভাগের মত জনপ্রিয় বিষয়গুলো।  এছাড়া কবি নজরুলকে নিয়ে গবেষণা করার জন্য রয়েছে ইন্সটিউট অব নজরুল স্টাডিজ।

ইতোমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রথম সমাবর্তন, রাষ্ট্রপতির আগমন ও সমাবর্তন ঘিরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

ছোট এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আবাসনের জন্য রয়েছে দুইটি হল। আরো নির্মাণ করা হচ্ছে- দুইটি হল।  নির্মাণ করা হয়েছে বিশ্বমানের লাইব্রেরি, সেখানে রয়েছে ই-স্টাডিজের সুবিধা।

ক্যাম্পাসে রয়েছে একটি স্বাস্থ্যসেবা, মসজিদ, ক্যাফেটেরিয়া, ব্যায়ামগার, প্রশাসনিক ভবন, শহীদ মিনার, খেলার মাঠসহ বাংলাদেশ ছাত্রলীগ নির্মিত জয় বাংলা ভাস্কর।

ক্যাম্পাসের ভেতরেই রয়েছে শিক্ষককের আবাসনের জন্য দুইটি ডরমেটরি, ভিসি বাংলোসহ অনেক কিছু।

ভবিষ্যতে বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৫ একর জায়গা বর্ধিত হবে একাডেমিক অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য। আরেকটি প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ করা হবে ৫ তলা ভবনের। ১০ তলা ভবনের আধুনিক সুবিধা নিয়ে দুইটি হল নির্মাণের কাজ চলছে। ১০ তলা ভবনের ম্যাপ এ দুইটি অনুষদের কাজ চলছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের জন্য নির্মিত হচ্ছে ১০ তলাবিশিষ্ট ভবন। নির্মাণ করা হবে- টিএসসি, ব্যায়ামগার। হাজার মানুষ নামাযের জন্য তিন তলা মসজিদ, মেডিকেল সেন্টার,  ইন্টারনেট সুবিধাসহ নানা কিছু।

ভবিষ্যতে আরও ৬৩০০ শিক্ষার্থীদের উন্নত শিক্ষার জন্য চালু করা হবে ১৮টি বিভাগ। বর্তমান সরকারের বাজেটে ও উপাচার্য মোহীত উল আলমের সার্বিক তদারকিতে ত্রিশালের কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে- এক সম্ভাবনাময় বিশ্ববিদ্যালয়, এই সম্ভাবনাময় সময়ের কালক্রমে হয়ত আন্তর্জাতিক মানের একটি ক্যাম্পাসে পরিণত হবার অপেক্ষায়।

(ঢাকাটাইমস/১৪জুন/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত