না.গঞ্জে ‘সুন্দরবন রক্ষা কমিটি’র কর্মসূচিতে হামলা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ জুলাই ২০১৭, ২৩:০৭

নারায়ণগঞ্জে নগরীর চাষাঢ়া শহীদ মিনারে সুন্দরবন রক্ষা ও রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ বন্ধের দাবিতে আন্দোলনকারী সংস্কৃতিকর্মীদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলায় কবি আরিফ বুলুবুলসহ চার সংস্কৃতিকর্মী আহত হয়েছেন। গুরুতর অবস্থায় কবি আরিফ বুলবুলকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বিকেলে বৃষ্টি উপেক্ষা করে নগরীর চাষাঢ়া শহীদ মিনারে সুন্দরবন রক্ষা ও রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ বন্ধের দাবিতে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি জেলা শাখার উদ্যোগে সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশ শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে একদল লোক কবি আরিফ বুলবুল, কবি আহম্মেদ বাবলু, শিল্পী অমল আকাশ ও শাহীন মাহমুদের ওপর লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে পেছন থেকে হামলা চালিয়ে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে।

এসময় কবি আরিফ বুলবুল মাটিতে লুটিয়ে পড়লে সন্ত্রাসীরা লোহার রড ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ‘বীরদর্পে’ চলে যায়।

আশপাশের লোকজন আহতদেরকে উদ্ধার করে নগরীর খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কবি আরিফ বুলবুলকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটি বিছিন্ন ঘটনা হিসেবে তিনি অভিহিত করে ঘটনায় যারা জড়িত থাকুক তাদেরকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান। 

এ ব্যাপারে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক রফিউর রাব্বি বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করি। আমরা সমাবেশ শেষে মিছিল নিয়ে বের হয়ে যাই, সেই সময় আমাদের কয়েকজনকর্মী শহীদ মিনারে ছিলেন। তারা শহীদ মিনারে অবস্থান করাকালে অতর্কিত তাদের ওপর লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। সন্ত্রাসীদের হামলায় কবি আরিফ বুলবুল ও কবি আহম্মেদ বাবলু গুরুতর আহত হন। আমরা আশঙ্কা করছি আমাদের সংস্কৃতির যারা শত্রু এবং সুন্দরবনের যারা শত্রু, যারা রামপালের পক্ষের লোক তারাই এই হামলা করেছে। আমরা চাইবো সরকার এদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেক, এবং সুশাসন ও সুবিচার নিশ্চিত করা হোক।

তিনি বলেন, মানুষের জীবনের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব সরকারের। কিন্তু নারায়ণগঞ্জে যে পরিস্থিতি বার বার উদ্ভূত হচ্ছে, সরকারের নিস্ক্রীয়তার কারণে সন্ত্রাসীরা বার বার উৎসাহিত হচ্ছে। এর অবসান হওয়া উচিত। 

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. আসাদুজ্জামান জানান, কারা হামলা চালিয়েছে তা এখনও শনাক্ত করা যায়নি। এই ঘটনায় যারা জড়িত থাকুক তাদেরকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে। তবে ঘটনাটি বিছিন্ন ঘটনা হিসেবে তিনি অভিহিত করেন।

এর আগে গত মে মাসের ১২ তারিখে শহীদ মিনারে রবীন্দ্র জয়ন্তী অনুষ্ঠানের হামলার ঘটনা ঘটেছিল। হামলায় ৮ জন আহত হয়েছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/১১জুলাই/প্রতিনিধি/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত