ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট, যাত্রীদের দুর্ভোগ চরমে

মহিউদ্দিন আহমেদ, গজারিয়া (মুন্সীগঞ্জ)
| আপডেট : ১৪ জুলাই ২০১৭, ১৯:৪৭ | প্রকাশিত : ১৪ জুলাই ২০১৭, ১৯:৩৭

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গজারিয়া ও সোনারগাঁ অংশে সংঘটিত সড়ক দুর্ঘটনা, মেঘনা সেতুর উপর একাধিক যান বিকল ও যানবাহন চলাচলের চাপ বৃদ্ধি পাওয়ায় মহাসড়কের বিশাল অংশজুড়ে বুধবার ভোর থেকে শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত থেমে থেমে যানজট তৈরি হয়েছে।

যাত্রী, চালক ও দায়িত্বরত পুলিশ  সূত্রে জানা গেছে, এতে  করে মহাসড়কে চলাচলকারী যাত্রী ও যানবাহনের চালকেরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। বিশেষ করে আটকে পড়া নারী ও শিশু যাত্রীদের দুর্ভোগ সীমা অতিক্রম করেছে। প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেয়ার দুর্ভোগ নারী যাত্রীদের।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা গেছে, বুধবার ভোর থেকে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত কয়েক দফায় কম পক্ষে সাতটি যানবাহন মেঘনা সেতুর উপর বিকল হয়ে পড়াসহ নানাবিধ কারণে যানজটে আটকা পড়ে মহাসড়কে যাতায়তকারী চালক ও যাত্রীরা দুর্ভোগের শিকার হন। মহাসড়কের কয়েকস্থানে আটকেপড়া যাত্রীরা মহাসড়কে নেমে গাছের ছায়ায় গল্প করতে দেখা গেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মেঘনা সেতুর ওপর সড়ক দুর্ঘটনা, একাধিক যানবাহন বিকল, যান চলাচলের চাপ বৃদ্ধি, মেঘনা ও মেঘনা-গোমতী সেতু এলাকায় পণ্যবোঝাই যানবাহনের আনুপাতিক হারে ধীরগতিতে সেতু পার হওয়াসহ মেঘনা সেতুর গজারিয়া প্রান্তের পূর্ব দিকের এক্সপানশন জয়েন্টের পাশে সেতুর সামান্য অংশজুড়ে গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় সেতুর ওপর যানবাহনের গতি কমে যাওয়াসহ নানাবিধ কারণে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ, মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া  এলাকার প্রায় বিশ কিলোমিটার থেমে থেমে যানজট লেগে আছে।

মেঘনা সেতুর পূর্ব পাশে সামান্য অংশ গর্ত থাকায় যানবাহনের গতি কমে যাওয়ার কথা অস্বীকার করে নারায়ণগঞ্জ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, ওভারলোড থাকা গাড়ির গতি কমে সেতুতে উঠার সময়। গর্ত হওয়া সেতুর অংশটুকু বৃহস্পতিবারের মধ্যে মেরামত করে দেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

শুক্রবার বিকালেও মহাসড়ক এলাকায় দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা জানান, সেতুর ওই অংশটুকু আগের মতোই রয়ে গেছে।

আলাউদ্দিন প্রধান গজারিয়া উপজেলার পুরানবাউশিয়া থেকে হাইস গাড়িতে করে পারিবারিক কাজে সকালে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়ে সাত কিলোমিটার পার হয়েছেন প্রায় পাঁচ ঘণ্টায়।

শুক্রবার চট্টগ্রাম থেকে গাজীপুরগামী পণ্যবাহী ট্রাকের চালক আলী মিয়া জানান, গন্তব্যে পৌঁছতে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় চার ঘণ্টা বেশি অতিবাহিত হলো এখনো মেঘনা সেতু পার হতে পারি নাই। কুমিল্লা থেকে রওয়ানা দেয়া যাত্রী আবু আলী বলেন, কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকেই গাড়ি থেমে থেমে চলছে তিন ঘণ্টায় গজারিয়া এলাকার ভাটেরচর পৌঁছলাম। কখন ঢাকা পৌছব?

গজারিয়া থানার ভবেরচর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো. আবুল হাশেম মুন্সী জানান,  মহাসড়কে যানচলাচল স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। চালকদের বেপড়োয়া গাড়ি চালনাসহ উল্টোপথে ঢুকে যাওয়ার প্রবণতা অনেকাংশে যানজটকে বিলম্বিত করে বলে যাত্রীরা দাবি করেন।

কুমিল্লা থেকে ছেড়ে আসা একটি বাসের যাত্রী আব্দুল মোমিন জানান, পথে পথে আটকে থাকায় নির্ধারিত সময় পার হয়ে গেলেও মেঘনা সেতুর পূর্ব ঢালে আটকে আছি।

এই প্রতিবেদন তৈরি  করা পর্যন্ত যানজট অব্যাহত রয়েছে।

কখন যান চলাচল স্বাভাবিক হবে দায়িত্বরত পুলিশের কোন কর্মকর্তা নিশ্চিত করতে পারেননি।

(ঢাকাটাইমস/১৪জুলাই/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত