পদ্মায় তীব্র স্রোতে কমেছে ফেরির ট্রিপ, ভোগান্তি

মঞ্জুর রহমান, মানিকগঞ্জ
| আপডেট : ১৫ জুলাই ২০১৭, ১১:৪১ | প্রকাশিত : ১৫ জুলাই ২০১৭, ০৮:০৬

পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোতের কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এতে কমেছে ফেরির ট্রিপসংখ্যা। ফলে নদী পার হতে আসা পরিবহন যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে ভোগান্তি।

এদিকে ঘাটে পরিবহনের চাপ বেড়ে যাওয়ায় বিআইডব্লিউটিসির একশ্রেণির অসাধু কর্মকর্তা সিরিয়ালের নামে আটকে থাকা যানবাহনের চালকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিআইডব্লিউটিসি সূত্রে জানা গেছে, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে বর্তমানে ১৭টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। এর মধ্যে রো-রো বড় ফেরি রয়েছে ৯টি, কে-টাইপ ছোট ফেরি ৩টি এবং ইউটিলিটি মাঝারি ফেরি ৫টি। আরো দুটি ফেরি যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ভাসমান কারখানায় মেরামতে আছে।

গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টি এবং উজান থেকে নেমে আসা পানির কারণে পদ্মা নদীতে প্রচ- ঢেউয়ের সঙ্গে তীব্র স্রোত বয়ে যাচ্ছে। নদীর এই স্রোতের বিপরীতে দীর্ঘদিনের পুরনো ছোট-বড় ফেরিগুলো পারাপারে নিদিষ্ট সময়ের চেয়ে বেশি সময় লাগছে। এ কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় যানবাহনের চাপ বেড়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

এই রুটে নিয়মিত চলাচলকারী বাসচালক সাইফুল ইসলাম জানান, গত এক সপ্তাহ ধরে ঘাট এলাকায় প্রতিদিন তিন-চার ঘণ্টার মতো অপেক্ষা করতে হয়।

যশোরের ট্রাকচালক আইনাল জানান, ফেরির ট্রিপ কমে যাওয়ায় পারাপারে যাত্রীবাহী বাস আগে সিরিয়াল পাচ্ছে। ফলে ট্রাক নিয়ে ঘাটে এসে তাদের তিন-চার দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

প্রাকৃতিক দুর্যোগের অজুহাতে গুরুত্বপূর্র্ণ এই ঘাটে পরিবহনের চাপ বেড়ে যাওয়ায় বিআইডব্লিউটিসির একশ্রেণির অসাধু কর্মকর্তা সিরিয়ালের নামে পরিবহন চালকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন পরিবহন চালকরা।

তীব্র ¯্রােতের কারণে পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়া নৌরুটে পারাপারে আগের চেয়ে দ্বিগুণের বেশি সময় লাগছে। এই রুটে চলাচলকারী কেরামত আলী ফেরির চালক অনিল কুমার ম-ল বলেন, স্বাভাবিক সময়ে পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়া প্রান্তে যানবাহন নিয়ে যেতে প্রতিটি ফেরির ৩০ থেকে ৩৫ মিনিট সময় লাগে। বর্তমানে স্রোতের বিপরীতে সাড়ে তিন নটিক্যাল মাইল চলতে একটি ফেরির সময় লাগছে ১ থেকে দেড় ঘণ্টা। ফেরিচালকরা বলেন, স্বাভাবিক সময়ে ২৪ ঘণ্টায় একটি ফেরি ২৩ থেকে ২৫টি ট্রিপ দিতে পারে। কিন্তু বর্তমানে ১৮ থেকে ২১টি ট্রিপ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে।  

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক জিল্লুর রহমান সিরিয়ালের নামে পরিবহন চালকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন।

জিল্লুর রহমান আরো বলেন, পদ্মার তীব্র স্রোতের কারণে অতিরিক্ত সময় নিয়ে ফেরি চলাচল করায় চলতি সপ্তাহে ফেরির ট্রিপসংখ্যা কমে গেছে। ফলে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে এখন কিছু কম যানবাহন পারাপার হচ্ছে।

ঢাকাটাইমস/১৫জুলাই/মোআ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত