আবার এক সপ্তাহ ‘শেষ সময়' পেল সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৭ জুলাই ২০১৭, ১৭:১৬ | প্রকাশিত : ১৭ জুলাই ২০১৭, ১৬:৫৯

নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরি শৃঙ্খলা বিধিমালা গেজেট আকারে প্রকাশে রাষ্ট্রপক্ষকে আবার শেষ সময় হিসেবে এক সপ্তাহ সময় দিয়েছেন আপিল বেঞ্চ।

সোমবার অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম গেজেট প্রকাশের জন্য দুই সপ্তাহ সময়ের আবেদন করলে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারকের আপিল বেঞ্চ এক সপ্তাহ সময় মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত ২ জুলাই সরকারকে দুই সপ্তাহ ‘শেষ সময়’ দিয়েছিলেন আদালত। সোমবার ছিল তার শেষ দিন। কিন্তু এদিন আবার সময় চাওয়া হয় রাষ্ট্রপক্ষে।

সকালে অ্যাটর্নি জেনারেলের লিখিত আবেদন পেয়ে প্রধান বিচারপতি তাকে বলেন, ‘মনে রাখবেন, সরকার ও প্রধান বিচারপতির মধ্যে ব্রিজ হলেন অ্যাটর্নি জেনারেল।’

নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরি শৃঙ্খলা বিধিমালা গেজেট আকারে প্রকাশে সরকারপক্ষ বহুবার সময় নিয়েছে। এ রকম ‘শেষ সময়’ও দেয়া হয় বেশ কবার। কিন্তু সরকারপক্ষ বারবার সময়ের আবেদন করে যাচ্ছে।

আপিল বিভাগের নির্দেশনার পর গত বছরের ৭ মে আইন মন্ত্রণালয় নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা বিধিমালার একটি খসড়া পাঠায় সুপ্রিম কোর্টে।

সরকারের খসড়াটি ১৯৮৫ সালের সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালার অনুরূপ হওয়ায় তা মাসদার হোসেন মামলার রায়ের পরিপন্থী বলে গত ২৮ আগস্ট শুনানিতে জানায় আপিল বিভাগ।

এরপর ওই খসড়া সংশোধন করে সুপ্রিম কোর্ট আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। সেই সঙ্গে তা চূড়ান্ত করে প্রতিবেদন আকারে আদালতে উপস্থাপন করতে বলা হয় আইন মন্ত্রণালয়কে।

এরপর দফায় দফায় সময় দেওয়া হলেও সরকার মাসদার হোসেন মামলার রায়ের আলোকে ওই বিধিমালা গেজেট আকারে প্রকাশ না করায় গত ৮ ডিসেম্বর দুই সচিবকে তলব করে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

আইন মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক এবং সংসদ বিষয়ক বিভাগের সচিব মোহাম্মদ শহিদুল হক আদালতে হাজির হলে প্রধান বিচারপতি বলেন, বিধিমালা নিয়ে ‘রাষ্ট্রপতিকে ভুল বোঝানো হয়েছে।’ সেদিন শুনানি করে গেজেট প্রকাশের নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় দেয় আপিল বিভাগ।

এরপর আরও কয়েক দফা সময় আবেদন করে সরকারপক্ষ।

(ঢাকাটাইমস/১৭জুলাই/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত