শেরপুরে স্কুলছাত্রী অপহরণে যুবকের ১৪ বছরের কারাদণ্ড

শেরপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৭ জুলাই ২০১৭, ২০:২১

শেরপুরে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় স্কুলছাত্রীকে অস্ত্রের মুখে অপহরণের মামলায় এক যুবকের ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের রায় দিয়েছে আদালত।

সোমবার বিকালে শেরপুরের শিশু আদালতের বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন এ সাজার রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত মাসুদ মিয়া শেরপুর শহরের চাপাতলি এলাকার আব্দুল মালেক ড্রাইভারের ছেলে।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালতে মাসুদ মিয়ার উপস্থিতিতেই এ সাজার রায় ঘোষণা করা হয়। তিনি মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণীর উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, শহরের চাপাতলি এলাকায় নালিতাবাড়ীর বাথুয়ারকান্দা গ্রামের এক ব্যক্তি তার ১৭ বছর বয়সী স্কুলপড়–য়া মেয়েকে নিয়ে থাকতেন। চাপাতলি মহল্লার আব্দুল মালেক ড্রাইভারের ছেলে বখাটে মাসুদ মিয়া ওই স্কুলছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করতেন। একপর্যায়ে মেয়ের বাবা বাধ্য হয়ে তিন বছর পর তুলে নেয়ার সমঝোতায় অনার্স পড়–য়া অপর একটি ছেলের সাথে মেয়েটির বিয়ে দেন। কিন্তু তাতেও দমে না গিয়ে বখাটে মাসুদ ২০১৬ সালের ২০ মার্চ অস্ত্রের মুখে ওই স্কুছাত্রীকে অপহরণ করে তুলে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে শিশু আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। সদর থানার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল হাসান ঘটনার চার মাস পর ভিকটিমকে উদ্ধার করে অপহরণকারী মাসুদকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আদালতে সাত সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সোমবার মাসুদকে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের রায় দেন।

(ঢাকাটাইমস/১৭জুলাই/প্রতিনিধি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত