বোয়ালমারী-মধুখালীতে দোলনের গণসংযোগ, পথসভা

আলফাডাঙ্গা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৯ জুলাই ২০১৭, ১২:৩০ | প্রকাশিত : ১৮ জুলাই ২০১৭, ২১:০২

প্রায় জনশূন্য বিকেল। কোথাও খুব একটা মানুষের দেখা নেই। চায়ের দোকানগুলোতে দু-চারজন গল্পগুজবে ব্যস্ত। হঠাৎ মাঝকান্দির ‘নীরব বাজার’ সরব হয়ে উঠল। আশেপাশের মানুষ ছুঁটে আসতে লাগলো তাঁর দিকে। তিনি কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, ঢাকাটাইমস ও সাপ্তাহিক এই সময় সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলন।  কাউকে তিনি বুকে জড়িয়ে নিলেন। কারো সঙ্গে হাত মিলিয়ে জানতে চাইলেন ‘কেমন আছেন?’

জবাবে পঞ্চাশোর্ধ্ব বৃদ্ধ সাত্তার মোল্লা বললেন, ‘কেমন আছি আপনি নিজের চোখে দেখে যান। শুনছি গোটা আলফাডাঙ্গায় পাকা রাস্তা হয়েছে। আপনি করে দিয়েছেন। আমাদের এখানে মানুষ কষ্ট করে। আপনি দেখে যান। তাদের জন্য কিছু করতে পারেন কি না।’

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার মাঝকান্দি মহাসড়কের আশেপাশের এলাকায় গণসংযোগকালে এই পরিবেশের সৃষ্টি হয়। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে চারটা থেকে সাতটা পর্যন্ত তিনি মাছকান্দি এলাকার বিভিন্ন গ্রাম ও মহল্লা ঘুরে দেখেন। এসময় তিনি স্থানীয়দের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

মধুখালীর রায়পুর ইউনিয়নের মাঝকান্দি, সুপরিকান্দি, পাইককান্দি এলাকায় সব রাস্তাই কাঁচা। এক টুকরো ইট বসেনি এমন রাস্তার সংখ্যাই বেশি। এমন রাস্তায় চলতে ফিরতে দুর্ভোগ এখন স্থানীয়দের নিত্যদিনের সঙ্গী।

এসময় স্থানীয়রা তাদের নিত্যদিনের দুর্ভোগের বিষয়টি তুলে ধরেন। তারা বলেন, নির্বাচনের পর নির্বাচন হয়। এখানকার মানুষের ভোটে সংসদ সদস্য সংসদে যায় কিন্তু রাস্তার কোনো পরিবর্তন হয় না। বেহাল রাস্তায় এক কোদাল মাটি কিংবা এক টুকরো ইটও বসায়নি কেউ।

সুপরিকান্দির স্থানীয় ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম মিয়া বলেন, ‘বৃষ্টির দিনে চলাফেরা করা কঠিন হয়ে পড়ে। অসুস্থ, বৃদ্ধ লোকদের জন্য এই রাস্তা আতঙ্কের কারণ।’ তিনি বলেন, ‘এখানে হাজারো মানুষের বসবাস। ভোটের সময় এসব মানুষের দরকার হয়। অথচ এসব মানুষের মঙ্গলের জন্য কাউকে পাওয়া যায় না।’

স্থানীয়দের দুঃখ-দুর্দশা শুনে আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ‘বর্তমান সরকার বৃহত্তর ফরিদপুরসহ সারাদেশে রাস্তাঘাটসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছে। প্রত্যন্ত অঞ্চলে সরকারের উন্নয়নের নজির পাওয়া যায়। উন্নয়ন পৌঁছে গেছে গ্রাম থেকে গ্রামে। অথচ সেখানে মধুখালী উপজেলায় এমন রাস্তার কথা ভাবাই যায় না।’

তিনি কথা দেন, সরকারের স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের মাধ্যমে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিষয়টি তুলে ধরবেন। এই এলাকার রাস্তাঘাটসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নে সাধ্যমত কাজ করবেন। কাঁচা রাস্তা পাকা করার জন্য তিনি সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেন বলেও আশ^স্ত করেন।

স্থানীয় বেশ কয়েকটি মসজিদ ঘুরে দেখেন আরিফুর রহমান দোলন। জরাজীর্ণ স্থাপনা। ইবাদতের জন্য সুন্দর পরিবেশ তৈরি জন্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর উন্নয়নে কাজ করার আশাও ব্যক্ত করেন তিনি। বলেন, ‘বর্তমান সরকার সারাদেশে মডেল মসজিদ তৈরি করতেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলাম এবং মুসলমানদের কল্যাণে অনেক কাজ করছেন। তার সরকারের সময় মসজিদ মাদ্রাসার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আপনাদেরও হবে। এজন্য আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকারকে ভোট দিয়ে জয়ী করতে হবে।’

এসময় আরিফুর রহমান দোলন পাইককান্দিতে একটি পথসভায় যোগ দেন। তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের বিভিন্ন সমস্যা দেখে গেলাম শুনে গেলাম। এতদিনে কোনো উন্নয়ন হয়নি। তবে এখন থেকে হবে। আপনারা বঙ্গবন্ধুর কন্যার ওপর আস্থা রাখুন।’

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজপাট বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত