জনগণের কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করতে চাই: দোলন

মো. মুজাহিদুল ইসলাম নাঈম, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১০ আগস্ট ২০১৭, ২২:২৯

মানুষের কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করে দিতে চান ‘কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনে’র চেয়ারম্যান এবং অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘ঢাকাটাইমস’ ও সাপ্তাহিক ‘এই সময়’’ সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলন। তিনি বলেন, ‘মানুষের জন্য কাজ করাই আমার উদ্দেশ্য। আমি মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চাই।’

বৃহস্পতিবার সকালে ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের কুচিয়াগ্রাম দক্ষিণপাড়ায় রাস্তা পাকাকরণ কাজের উদ্বোধনকালে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকাটাইমস সম্পাদক বলেন, ‘মানুষের জন্য কাজ করতে পেরে আমার ভালো লাগে। আমার পূর্বপুরুষের ইতিহাস সমাজকর্ম করার ইতিহাস, মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ইতিহাস, মানুষকে বুকে টেনে নেয়ার ইতিহাস। তাদের সেই কাজকে আমি শুধু ধরেই রাখতে চাই না, আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। এর বাইরে আমার অন্য কোনো উদ্দেশ্য নাই।’

কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘‘এই মাসের ১৫ তারিখে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কুচক্রীমহল হত্যা করেছে। অথচ তার জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। আমরা যেভাবে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে আছি সেটাও সম্ভব হতো না। সেই মানুষটির প্রতি আমি শ্রদ্ধা নিবেদন করছি। আমরা সবাই এই মানুষটির জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করব আল্লাহ যেন তাঁকে বেহেস্ত নসিব করেন। তার আদর্শ ছিল মানুষের সেবা করা, দেশের সেবা করা। আমরা যেন সেই আদর্শ পুরোপুরিভাবে বাস্তবায়ন করতে পারি।’

আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী থাকার কারণেই আজ এখানে রাস্তার পাকাকরণ কাজ হচ্ছে। আমি মনে করি শেখ হাসিনা না থাকলে এটি করাও সম্ভব হতো না। শুধু এটিই নয়, এই অঞ্চলের প্রত্যেক গ্রামের সব কাঁচা রাস্তা পর্যায়ক্রমে পাকা হবে। আমরা সেদিকেই এগোচ্ছি। আর সেটি সম্ভব হবে যদি শেখ হাসিনা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী থাকেন। উনি ফরিদপুরের উন্নয়ন চান। আমাদের শুধু তার কাছ থেকে চেয়ে আনতে হবে। আমাদের দাবির কথা নেত্রীর কানে পৌঁছাতে হবে।’

কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমি মনে করি অতীতে আমাদের এ অঞ্চলের কথা নেত্রীর কানে পৌঁছানোর কোনো ব্যবস্থা ছিল না। যদি থাকত, তাহলে এ অঞ্চলের উন্নয়ন অনেক আগেই হতো।’

এই সময় সম্পাদক বলেন, ‘আমি এই অঞ্চলের সন্তান। আমাকে আপনাদের সন্তান মনে করে নির্দিধায় আদেশ-নির্দেশ-উপদেশ দেবেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে কিছুই চাই না। আমি আপনাদের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এখন আমি দ্বিতীয় জনমে আছি। কারণ বছর দেড়েক আগে মারাত্মক একটা সড়ক দুর্ঘটনায় আমার জীবনহানি হতে পারত। ওই দুর্ঘটনায় দুইজন মারা যায়। মারাত্মকভাবে আহত হলেও আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি বেঁচে যাই। তাই মানুষের সেবার জন্য এ জীবন আরও বেশি করে উৎসর্গ করা উচিৎ বলে আমি মনে করি। আর সে লক্ষ্যে কাজ করতে আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই।’

আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ‘বর্তমান সরকারের আমলে শুধু এই অঞ্চলেরই উন্নয়ন হচ্ছে না, সারাদেশেই উন্নয়ন হচ্ছে। বরং এ অঞ্চল পিছিয়েছিল। বছর দেড়-দুয়েক আগেও অনেক পিছিয়েছিল। অথচ এই এলাকার মানুষ ভোট দিয়ে ফরিদপুর-১ আসনে নৌকা মার্কার প্রার্থীকে নির্বাচিত করে। তাহলে সেই এলাকার মানুষের পিছিয়ে থাকার কারণ কী?  নেতৃত্বের অভাবেই এমনটি হয়েছে। যেমন বঙ্গবন্ধু না থাকলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। অথচ বঙ্গবন্ধুর আগেও অনেক নেতা ছিলেন। কিন্তু তারা সঠিক নেতৃত্ব দিতে ব্যর্থ হয়েছেন বলেই দেশ স্বাধীন করা যায় নাই। ঠিক তেমনি আমাদের সমস্যা ঢাকায় পৌঁছানোর মত উপযুক্ত নেতৃত্ব ছিল না। যদি থাকতো তাহলে কেন এই সমস্যার সমাধান হয় নাই? আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমাদেরকে যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি করতে হবে।’

ঢাকাটাইমস সম্পাদক বলেন, ‘আমি এমপি হতে চাই না। আমি মানুষের সেবা করতে চাই। আল্লাহ যদি কোনো দিন ওই জায়গায় আমাকে বসায় তাহলে একজন সংসদ সদস্যের যে বেতনভাতা সম্মানি আছে তার একটি টাকাও নিজে গ্রহণ করব না। জনগণের কল্যাণে তা ব্যয় করব। অর্থাভাবে যারা লেখাপড়া করতে পারেন না, চিকিৎসা, মেয়ের বিয়ে দিতে পারেন না তাদের কল্যাণে ব্যয় হবে। এ রকম অনেক জনকল্যাণমূলক কাজ ওই টাকা দিয়ে করা সম্ভব।’

সভায় আরও বক্তব্য দেন, ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য শেখ শহীদুল ইসলাম শহীদ, সাবেক গোপালপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজীবুর রহমান নজীর, গোপালপুর ইউপি সদস্য আব্বাস উদ্দিন, আওয়ামী লীগ মনোনীত গোপালপুর ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ফরিদপুর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইনামুল হাসান, এলাকার মুরব্বী আব্দুল মান্নান প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/১০এপ্রিল/প্রতিনিধি/এমআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজপাট বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত