বিপদসীমার উপর ১৪ নদী

জহির রায়হান, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১২ আগস্ট ২০১৭, ২০:৩৩ | প্রকাশিত : ১২ আগস্ট ২০১৭, ১৯:৫৬

দেশের ১৭টি পয়েন্টে প্রধান প্রধান ১৪টি নদী ফুলে ফেঁপে উঠেছে। এতে দুই কূল ছাপিয়ে পানি ঢুকে পড়েছে লোকালয়ে। তলিয়ে গেছে পথ, ঘাট, ফসলি জমি। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানিয়েছে পানি আরও দুই থেকে তিন দিন বাড়তে পারে। ফলে গত এপ্রিল-মের মত আবার বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিতে পারে।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজ্জাদ হোসেন ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আজকে যেমন বৃষ্টিপাত হয়েছে, সেটা অব্যাহত থাকলে দুই মাস আগের মত বন্যা দেখা দেবে। আর আমরা আগামী দুই দিনে বৃষ্টি থামার লক্ষণ দেখছি না।

দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আমাদের সহকর্মীরা জানিয়েছেন উত্তর পূর্বে সিলেট অঞ্চল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নেত্রকোণা, উত্তরে ঠাকুরগাঁও, গাইবান্ধা, পঞ্চগড়, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, সিরাজগঞ্জ, মধ্যাঞ্চলে জামালপুর, শেরপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় বাঁধ উপচে বা ভেঙে লোকালয়ে পানি ঢুকে পড়েছে। এতে সড়ক যোগাযোগের পাশাপাশি ব্যাহত হচ্ছে রেল যোগাযোগও। 

পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্রের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শনিবার জানানো হয়, দেশের প্রধান নদ-নদী ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, পদ্মা-গঙ্গা এবং সুরমা-কুশিয়ারা নদীসমূহের পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ব্রহ্মপুত্র-যমুনা এবং গঙ্গা ও পদ্মা নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি আগামী ৭২ ঘণ্টায় অব্যাহত থাকতে পারে এবং সুরমা-কুশিয়ারা নদীর পানি আগামী ২৪ ঘণ্টা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে।

পূর্বাভাস কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজ্জাদ হোসেন জানান, শনিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ৯০টি পানি সমতল স্টেশনের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী ১৭ পয়েন্টের পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বাইছে।

সাজ্জাদ হোসেন জানান, ৮১টি পয়েন্টের পানি বৃদ্ধি পেয়েছে, হ্রাস পেয়েছে ছয়টি এবং দুটি পয়েন্টের পানি অপরিবর্তিত রয়েছে এবং একটি পয়েন্টের কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। এ সময় ১৬টি পয়েন্টে ১০০ সেন্টিমিটার এবং ৩৮টি পয়েন্টে ৫০ সেন্টিমিটার উপরে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

সাজ্জাদ হোসেন জানান, গতকাল সকাল ৯টা থেকে আজ শনিবার সকাল ৯ পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সুনামগঞ্জে ২০৫ মিলিমিটার, দিনাজপুরে ১৮৭ মিলিমিটার, ডালিয়া পয়েন্টে ১৮৬ মিলিমিটার, এবং ময়মনসিংহে ১৮২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

এ সময় মনু নদীর মনু রেলওয়ে ব্রিজের পয়েন্টে ৩৬৮ সেন্টিমিটার, খোয়াই নদীর বাল্লা পয়েন্টে ২২১ সেন্টিমিটার, খোয়াই নদীর হবিগঞ্জ পয়েন্টে ৪৭০ সেন্টিমিটার, ধলাই নদীর কমলগঞ্জ পয়েন্টে ২৭৮ সেন্টিমিটার এবং ভুগাই নদীর নাকুয়াগাঁও পয়েন্টে ৩২০ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাস

বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে নদীর পানি বাড়বেই-এই হলো পানি উন্নয়ন বোর্ডের পূর্বাভাস। আর আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে আগামী ৭২ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।

শনিবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম ‍ও সিলেট বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছে পূর্বাভাসে।

ঢাকাটাইমস/১২আগস্ট/জেআর/ডব্লিউবি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত