বিয়ের প্রলোভনে দলবেঁধে ধর্ষণ: যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

ব্যুরো প্রধান, ময়মনসিংহ
 | প্রকাশিত : ১৩ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

ময়মনসিংহে বিয়ের প্রলোভনে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় এক যুবলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার গ্রেপ্তার বোরহান উদ্দিন জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার ২নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি।

শনিবার বিকালে ময়মনসিংহ এক নম্বর আমলী আদালতে বোরহান উদ্দিনকে সোপর্দ করা হলে ধর্ষণ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বোরহান ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

রবিবার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে নির্যাতিত ওই নারীর মেডিকেল পরীক্ষা করানো হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন, ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার ঢাকাটাইমসে ‘বিয়ের প্রলোভনে দলবেঁধে ধর্ষণ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদে বলা হয়, ময়মনসিংহে কয়েকজন যুবকের বিরুদ্ধে এক নারীকে বিয়ের প্রলোভনে  দলবেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার গোপালগঞ্জ গ্রামে এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা করা  হয়েছে।

মামলার এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজীবপুর ইউনিয়নের ভাটি চরনওপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে জুয়েল মিয়া গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া থানার বান্দাবাড়ি গ্রামের এক নারীর সাথে একবছর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয়। তারপর থেকে জুয়েল মিয়ার সাথে ওই নারীর মোবাইল ফোনে কথাবলার একপযার্য়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই সূত্রে জুয়েল মিয়া ওই নারীকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে বড় বোনকে সাথে নিয়ে গত ৬ আগস্ট রাত ৯টার দিকে ঈশ্বরগঞ্জ বাস স্টেশনে পৌঁছে। সেখান থেকে জুয়েল মিয়া সিএনজিযোগে রাজীবপুর ইউনিয়নের ভাটি চরনওপাড়া গ্রামের  লাটিয়ামারী বাজারের কাছে বেড়িবাঁধ এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদের বালুর চরে তাদের নিয়ে যায়। পরে রাত ১১টার দিকে জুয়েল মিয়া ও তার সহযোগীরা বড় বোনকে আটকে রেখে ছোট বোনকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে এবং তাদের সাথে থাকা বিভিন্ন স্বর্ণালংকার ও দুটি মোবাইল ফোন, ক্যামেরা, নগদ টাকাসহ অন্যান্য জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

পরে ভোরে অসুস্থ অবস্থায় বড়বোনের সহায়তায় অদূরে আক্তারুজ্জামান শরাফতের বাড়িতে আশ্রয় নেয়।

আক্তারুজ্জামান ঘটনার বিবরণ শুনে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে নিয়ে গেলে চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে গিয়ে আশে-পাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসা করে সত্যতা পেয়ে ওই নারীকে আইনের আশ্রয় নিতে বলে।

পরে শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই নারী বাদী হয়ে জুয়েল মিয়াসহ নয়জনকে আসামি করে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন।

(ঢাকাটাইমস/১২আগস্ট/এমডি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত