আমদানি ও অভিযানের প্রভাব নেই চালের বাজারে

মোসাদ্দেক বশির, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৩:৩৭ | প্রকাশিত : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০:৫৭

প্রতিদিনই বাড়ছে চালের দাম। কোনো কিছুতে নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না চালের বাজার। মূল্যবৃদ্ধির লাগাম টানতে সরকার চাল আমদানি, অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজি রুখতে গোদামে অভিযান পরিচালনাসহ নানামুখী উদ্যোগ নিলেও কাজে আসছে না তা। চালের দামের লাগামহীন ঊর্ধ্বমুখিতায় আতঙ্কে আছে স্বল্প আয়ের মানুষ।   

নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের মধ্যে মোটা চালের চাহিদা তুলনামূলক বেশি। সেই মোটা চালের দাম এখন আকাশ ছোঁয়া। ৪৮ টাকার নিচে কোনো ধরনের চাল নেই বাজারে। খোলা বাজারে বিক্রি (ওএমএস) করার চাল কেজিতে ১৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা করেছে সরকার।

রাজধানীর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, খুচরা বাজারে প্রতি কেজি মোটা চাল ৪৮ থেকে ৫২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ইরি, গুটি স্বর্ণা বিক্রি হচ্ছে ৪৮ টাকা থেকে ৫০ টাকায়, বিআর-২৮ ৫২ থেকে ৫৪ টাকায়, মিনিকেট ৬২ থেকে ৭০ টাকায় ও নাজিরশাইল ৭০ থেকে ৭৫ টাকায়, কাটারিভোগ ৮৫ থেকে ৯০ টাকায়। গত ১৫ দিনে প্রকার ও মানভেদে প্রতি কেজি চালের দাম বেড়েছে ১২ থেকে ১৫ টাকা।

সংকটের শুরু হাওর ডুবে

চলতি বছরের মার্চের শেষে হাওর বেষ্টিত ছয় জেলায় পাহাড়ি ঢল ও অকাল বন্যায় বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়। তখন থেকেই দেশে চাল সংকট শুরু হয়। বাড়তে থাকে চালের দাম। এরপর আগস্টে ভারতে থেকে নেমে আসা বন্যার পানিতে তলিয়ে যায় সিলেট, উত্তরাঞ্চলসহ ২২ জেলা।

ফসল নষ্ট হলেও সরকার বারবার আশ্বস্ত করে আসছে দেশে চালের কোনো সংকট হবে না। পর্যা‌প্ত মজুদ আছে। কিছু চাল আমদানি করা হবে।

সরকারের নানামুখী উদ্যোগ

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকার প্রথমে চালের ওপর আমদানি শুল্ক কমায়। চালের আমদানি বাড়াতে গত ২০ জুন শুল্কহার ২৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশ করা হয়। কিন্তু তাতে বাজারে তেমন প্রভাব না পড়ায় গত ১৭ আগস্ট আমদানি শুল্ক আবার কমিয়ে ২ শতাংশ করা হয়। পাশাপাশি বাকিতে ঋণপত্র খোলার সুযোগ দেয় সরকার। এ ছাড়া সরকারও বিদেশ থেকে চাল আমদানির উদ্যোগ নেয়। তাতেও কাজ হচ্ছে না।

মজুদদারদের বিরুদ্ধে অভিযান

চালের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির পেছনে অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজির অভিযোগ তোলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। বিভিন্ন সময় দেশের নানা জায়গায় ব্যবাসয়ীদের চালের গুদামে অভিযান চালানো হয়। রবিবার সচিবালয়ে অটো রাইসমিল মালিক অ্যাসোসিয়েশন নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, অবৈধভাবে মজুদকারীর জন্য চালের দাম বাড়ছে। এ জন্য তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিনই বাণিজ্যমন্ত্রীর তাৎক্ষণিক নির্দেশে অভিযান চালানো হয় বাংলাদেশ রাইস মিল অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদের কুষ্টিয়ার গুদামে।

বাজারে প্রভাব

চাল মজুদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার পরও বাজারে এর কোনো প্রভাব নেই। রাজধানীর বাজার ঘুরে জানা গেছে, অভিযানের পর চালের দাম কমার বদলে বরং বেড়েছে।

গুলিস্তান কাপ্তানবাজারে চাল বিক্রি করেন মো. সোহেল। ঢাকাটাইমসকে তিনি বলেন, বেশি দামের কারণে বাবুবাজার থেকে চাল কিনতে পারিনি। গতকালের চেয়ে আজ আরও বেশি দাম চাইছে।

চালের দাম বাড়ার কারণ হিসেবে সোহেল বলেন, হাওরে বন্যার পর থেকে চাল নিয়ে একটা আতঙ্ক তৈরি করা হয়েছে। সেই আতঙ্ক থেকেই দাম বাড়াচ্ছে মিল মালিকরা।

মানুষ এখন অল্প অল্প চাল কেনে বলে জানান সোহেল। তিনি বলেন, ‘আগে মানুষ চাল কিনত বস্তা ধরে। এখন বস্তা কেনা বাদ দিয়েছে। ৫০ কেজির এক বস্তা চাল কিনতে তিন হাজার টাকা লাগে। মানুষ কাছের দোকান থেকে দুই-এক কেজি করে চাল কিনছে। এতে আমাদের বিক্রি কমে গেছে।’ 

চাল আমদানি বেড়েছে

২০১৭-১৮ অর্থবছরের জুলাইয়ে চাল আমদানির জন্য ১৪ কোটি ৬৪ লাখ ডলারের এলসি (ঋণপত্র) খোলা হয়েছে। এই অংক গত বছরের জুলাই মাসের চেয়ে ১২ হাজার ৫৩৭ শতাংশ বেশি। জুলাই মাসে চাল আমদানির এলসি নিষ্পত্তি হয়েছে ৭ কোটি ১২ লাখ ডলারের, যা গত বছরের জুলাইয়ের চেয়ে ৫ হাজার ৩১৬ শতাংশ বেশি। গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই মাসে মাত্র ১১ লাখ ৬০ হাজার ডলারের এলসি খোলা হয়েছিল। এ ছাড়া গম আমদানির এলসি বেড়েছে ৭৪ শতাংশ।

খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বেসরকারিভাবে ১৭ লাখ টন চাল আমদানির জন্য এলসি খোলা হয়েছে। ভিয়েতনাম থেকে আড়াই লাখ টন চাল আমদানি হচ্ছে। ইতোমধ্যে ভিয়েতনামের এক লাখ ৫৪ হাজার টন চাল গোডাউনে ঢুকেছে। বাকি চাল খালাসের অপেক্ষায় আছে। কম্বোডিয়া থেকে আড়াই লাখ টন চাল আমদানিতে চুক্তি হয়েছে। আগামি তিন মাসের মধ্যে এসব চাল দেশে আসবে। এছাড়া মিয়ানমানের সঙ্গে এক লাখ টন আতপ চাল কেনার জন্য চুক্তি করেছে সরকার।

(ঢাকাটাইমস/১৯সেপ্টেম্বর/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিবেদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত