‘দাউদ ইব্রাহীম পাকিস্তানেই আছেন’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৫:২৭

ভারতের ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ অপরাধী মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিম রয়েছেন পাকিস্তানেই। পুলিশের জেরায় এ কথাই জানিয়েছেন আন্ডারওয়ার্ল্ড ডনের ভাই ইকবাল কাসকর। দাউদের ৪-৫টা ঠিকানাও জানিয়েছেন তিনি।

তোলাবাজির মামলায় গত মঙ্গলবার পুলিশ ও গোয়েন্দারা কাসকরকে মুম্বাই থেকে গ্রেপ্তার করে। গত দু’দিন ধরে তাকে দফায় দফায় জেরা করেন গোয়েন্দা ও অপরাধ দমন শাখার কর্মকর্তারা। পুলিশের দাবি, জেরায় দাউদ সম্পর্কে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন কাসকর।

১৯৯৩-এর মুম্বাই বিস্ফোরণের মূল হোতা দাউদ পাকিস্তানে বহাল তবিয়তে রয়েছেন। করাচি এবং সে দেশের অন্যান্য শহরে দাউদের ন’টি ঠিকানার একটি তালিকা আগেই পাকিস্তানের হাতে তুলে দিয়েছিল ভারত। বার বার দাবিও জানিয়েছে দাউদ সে দেশেই আছে। কিন্তু পাকিস্তান সে কথা বার বার অস্বীকার করেছে। তবে কাসকরের স্বীকারোক্তি ভারতের দাবিকে আরও জোরালো করল বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

দাউদের ভাইদের মধ্যে একমাত্র কাসকরই এখন রয়েছে মুম্বাইতে। ১৮ সেপ্টেম্বর ৬০ বছরের কাসকর ও তার দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করেছে থানে পুলিশ।

পুলিশের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার দাবি, জেরায় দাউদ সম্পর্কে আরও বেশকিছু কথা বলেছেন কাসকর। শুধু দাউদই নয়, তার ভাই আনিস ইব্রাহিমও পাকিস্তানেই রয়েছে। তাদের সঙ্গে সম্প্রতি চার-পাঁচ বার কথাও হয়েছে কাসকরের। পাশাপাশি জেরায় কাসকর এটাও জানিয়েছেন, ফোন ট্যাপ হওয়ার আশঙ্কায় ভারতে তার আত্মীয় ও দলবলকে ফোন করতে ভয় পাচ্ছেন দাউদ।

পুলিশ জানিয়েছে, দাউদের মাদক ব্যবসা আফ্রিকা এবং দক্ষিণ আমেরিকায় ছড়িয়ে পড়েছে। মুম্বাইয়ে তার রিয়েল এস্টেট-এর ব্যবসা সামলাতেন কাসকর। বেশ কয়েক বছর ধরেই থানে ও মুম্বাইয়ে দাউদের লোকেদের বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ উঠছিল। দিনে দিনে তোলাবাজির দাপটও বেড়ে চলেছিল। ২০১৩ থেকে থানেতে দাউদের নাম করে রিয়েল এস্টেট-এর ব্যবসায়ী হুমকি দিচ্ছিলেন কাসকর। অবশেষে পুলিশের জালে পড়েন তিনি।

বৃহস্পতিবারই মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা’র প্রধান রাজ ঠাকরে একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে দাবি করেন, শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী দাউদ। কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে ভারতে ফেরার চেষ্টা চালাচ্ছেন তিনি। কারণ জীবনের শেষ সময়টা নাকি তিনি এ দেশেই কাটাতে চান।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

(ঢাকাটাইমস/২২সেপ্টেম্বর/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত