বিএনপির সঙ্গে সমঝোতার প্রস্তাব কেউ দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ২৩:০৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপির সঙ্গে কোনো রাজনৈতিক সমঝোতার কথা নাকচ করে দিয়ে বলেছেন, ভবিষ্যতে কেউ যেন এ ধরনের প্রস্তাব নিয়ে না আসে।

শুক্রবার নিউইয়র্কে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর অংশগ্রহণের সফলতার সম্পর্কে তুলে ধরতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা সন্ত্রাস ও হত্যার রাজনীতির সঙ্গে জড়িত আমি তাদের কাছে ফিরে যেতে আগ্রহী নই। তাই বিএনপি’র সঙ্গে রাজনৈতিক সমঝোতার প্রস্তাব দেয়া কারো উচিত হবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা হত্যা ও সন্ত্রাসের রাজনীতি, বঙ্গবন্ধুর বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ড এবং দেশকে ধ্বংসে বিশ্বাসী তাদের সঙ্গে কোনো রাজনৈতিক সমঝোতা হতে পারে না।’ যারা আমার বাবা-মাকে হত্যা করেছে তাদের সঙ্গে কখনো সমঝোতা হতে পারে না বলেও মন্তব্য করেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে দেয়া তার বক্তব্যে এবারের নিউইয়র্ক সফরের বিস্তারিত তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গতকাল আমি জাতিসংঘের ৭২তম অধিবেশনের সাধারণ বিতর্ক পর্বে অংশ নিয়েছি। আমি আমার বক্তৃতায় রোহিঙ্গাদের সমস্যার কথা জোরালোভাবে তুলে ধরেছি। রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে দ্রুত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্য জাতিসংঘ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অনুরোধ জানিয়েছি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশন চলাকালে সাইডলাইনে আমি বেশ কিছু দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেছি। জাতিসংঘের মহাসচিবের সঙ্গে গতকাল আমার দ্বিপাক্ষিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি এ সমস্যার রাজনৈতিক সমাধানের উদ্যোগ নেয়ার জন্য আমি মহাসচিবকে অনুরোধ জানাই। রোহিঙ্গা বিষয়ে তিনি যে উদ্যোগ নিয়েছেন এর জন্য আমি তাকে ধন্যবাদ জানাই এবং মিয়ানমারে অতিসত্তর ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন পাঠানোর অনুরোধ করি।’

প্রধানমন্ত্রী জানান, এছাড়া ভুটানের প্রধানমন্ত্রী, নেদারল্যান্ডের রানি, এস্তোনিয়ার রাষ্ট্রপতি, কসোভোর রাষ্ট্রপতি, নেপালের প্রধানমন্ত্রী, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার মহাপরিচালক, জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাই কমিশনার, বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির নির্বাহী পরিচালক এবং আইবিএম এর প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তার দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়।

(ঢাকাটাইমস/২২সেপ্টেম্বর/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত