নির্বাচনে সেনাবাহিনী চান রিজভী

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি
 | প্রকাশিত : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ২৩:৪৯

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সেনাবাহিনী মোতায়নের দাবি জানিয়েছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে দানবীর রণধা প্রসাদ সাহার পুজা ম-প পরিদর্শনের আগে উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় নির্বাচনে সেনাবাহিনীর প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন রিজভী।

রিজভী বলেছেন, যেখানে সাড়ে চার লাখ রোহিঙ্গার ত্রাণ বিতরণে সেনাবাহিনী লাগে, ভোটার আইডি কার্ডের জন্য সেনাবাহিনীর প্রয়োজন হয়, সেখানে দশ কোটি আঠারো লাখ ভোটার ভোট কেন্দ্রে নির্বিঘেœ যাবেন সেইটা নিশ্চিত করতে নাকি আনসার ভিডিপি যাবে। সেখানে সেনাবাহিনী তারা দিতে চান না। কারণ সেনাবাহিনী নিয়োজিত হলে সন্ত্রাসীরা ভোট কেন্দ্র দখল করতে পারবে না। ব্যালট বাক্স পূরণ করতে পারবে না। ব্যালট পেপারে সিল মারতে পারবে না। তিনি নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন নিশ্চিত করার লক্ষে সকল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। 

মির্জাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি ও আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় আরও বক্তৃতা করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান। 

রুহুল কবীর রিজবী রহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের ব্যর্থতার অভিযোগ তুলে বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিথর পাথরের মতো বসে আছেন। তার কোন কূটনৈতিক উদ্যোগ আমরা দেখিনি। 
তিনি বলেন, যারা হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ রোহিঙ্গাদের অত্যাচার করছে, আমরা তাদের কাছে চাল কিনতে যাচ্ছি। এটা কত যে অপমানের। আমরা ঘাস খেয়ে থাকতাম, আমরা পাতা খেয়ে থাকতাম। আমাদের সরকার গোটা জাতিকে বন্দি করে রেখেছে। একদিকে যেমন গণতন্ত্র নেই, খবরের কাগজ পড়ার অধিকার নেই, কথা বলার অধিকার নেই, কথা বললেই এখান থেকে বেড়িয়ে গুম হবো, নাকি বাড়ি যাবে তার নিশ্চয়তা নেই শেখ হাসিনার আমলে। 
পরে বিএনপি নেতৃবৃন্দ বেখম খালেদা জিয়ার পক্ষে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার পূজা ম-প পরিদর্শন করেন। এ সময় তাদের স্বাগত জানান কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহা। 

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক ছাত্রদল নেতা সাঈদ সোহরাব, টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সভাপতি কৃষিবিদ শামসুল আলম তোফা, সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফরহাদ ইকবাল, মির্জাপুর পৌর বিএনপির সভাপতি হযরত আলী মিঞা, উপজেলা বিএনপির নেতা ফিরোজ হায়দার খান, সাধারণ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম নয়া, উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মৃধা নজরুল ইসলাম, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জুলহাস মিয়া, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক নুরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফরিদসহ উপজেলা ও পৌর বিএনপির ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। 

(ঢাকাটাইমস/২৮সেপ্টেম্বর/প্রতিনিধি/ ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত