বিশ্বের সেরা ১০ বার্তা সংস্থা

নজরুল ইসলাম, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর ২০১৭, ১০:৩৮

দেশ-বিদেশে যে সংবাদপত্র হাতে নেওয়া হোক, কিংবা টেলিভিশনের ওপর চোখ রাখা হোক, সেখানে অনেক খবরের সংবাদ-সূত্র হিসেবে এক বা একাধিক বার্তা সংস্থার অবদান থাকেই। ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার পাশাপাশি বর্তমানে অনলাইন নিউজপোর্টালেরও একটা বড় সংবাদসূত্র বার্তা সংস্থা। বিশ্বে বহু সরকারি-বেসরকারি  বার্তা সংস্থা রয়েছে। এর মধ্যে কিছু কিছু বার্তা সংস্থা বিশ্বব্যাপী বিপুলভাবে সমাদৃত।  চলুন জেনে নিই বিশ্বের সেরা দশটি  বার্তা সংস্থা সম্পর্কে।

এপি

এপি বা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা। পৃথিবীর অন্যতম বৃহৎ  মার্কিন সংবাদ সংস্থাটি ১৮৪৬ সালে গঠিত হয়। এর প্রধান সদর দপ্তর নিউইয়র্কে অবস্থিত। নিউইয়র্কে প্রতিষ্ঠিত বার্তা সংস্থাটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি সংবাদপত্র ও সম্প্রচার কেন্দ্রের মালিকানাধীন একটি সমবায় প্রতিষ্ঠান। এপি বিশ্বব্যাপী প্রায় তিন হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এর ফটো লাইব্রেরিতে এক কোটির বেশি ছবি আছে। এপি বর্তমানে ২৪২টি ব্যুরোর মাধ্যমে ১২১টি দেশে সেবা দিচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে বিশ্বের অনেক গণমাধ্যম কর্তৃপক্ষ ফির বিনিময়ে এপির সংগৃহীত তথ্য ও ছবি ব্যবহার করে।

এএফপি

এএফপি বা এজেন্সি ফ্রান্স প্রেস বিশ্বের অন্যতম পুরনো সংবাদ সংস্থা। ফ্রান্সের প্যারিসভিত্তিক সংবাদ সংস্থাটির ব্যুরো অফিস রয়েছে ১৫০টি দেশে। এএফপি ফরাসি, ইংরেজি, আরবি, স্প্যানিশ, জার্মান ও পুর্তগিজ ভাষায় সংবাদ সরবরাহ করে। ১৮৩৫ সালে ‘আজঁস আভা’ নামে এই সংস্থাটির সূচনা হয়। ১৮৩৫ সালে প্যারিসের বিখ্যাত অনুবাদক ও বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি চার্লস লুইস হাভাসের গঠিত এজেন্সি হাভাসের মাধ্যমে এএফপি প্রতিষ্ঠিত হয়।

রয়টার্স

রয়টার্স গ্রুপ পিএলসির একটি ব্রিটিশ বহুজাতিক বাণিজ্যিক গণমাধ্যম। এর সদর দপ্তর লন্ডনে। ১৮৫১ সালে ব্রিটেন রয়্যাল এক্সচেঞ্জের পল জুলিয়াস রয়টার্স প্রতিষ্ঠা করেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন নিহত হওয়ার পর বিশ্বের প্রায় সব গণমাধ্যম রয়টার্সের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছিল। বর্তমানে ৯৪টি দেশে ২০০ নগরে ২৪টি ভাষায় রয়টার্স একযোগে সংবাদ সরবরাহ করে যাচ্ছে। ২০০৮ সালে থমসন গ্রুপ রয়টার্সের মালিকানা কিনে নেয়।

সিপি

দ্য কানাডিয়ান প্রেস, সংক্ষেপে সিপি। এটি লা প্রেস কানাডিয়ান নামেও খ্যাত। কানাডার এই জাতীয় বার্তা সংস্থার সদর দপ্তর টরন্টোতে। ১৯১৭ সালে অলাভজনক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে এর আত্মপ্রকাশ ঘটে। প্রায় ২৫০ জন সংবাদকর্মী নিয়ে কানাডিয়ান প্রেসের ব্যুরো কার্যক্রম বিস্তৃত। ১৯৯৬ সালে কানাডিয়ান প্রেস ব্রেকিং নিউজ সার্ভিস চালু করে। কানাডিয়ান প্রেস একই সঙ্গে ফটো-সাংবাদিকদের মাধ্যমে বৃহত্তম আর্কাইভ গড়ে তুলেছে। কানাডায় এটিই ছিল প্রথম অনলাইন আর্কাইভ। বর্তমানে এতে ছবির সংখ্যা প্রায় দুই কোটি। প্রতিদিন এই আর্কাইভে যুক্ত হয় ১০০ ডিজিটাল সংবাদচিত্র যা সংবাদপত্র, টেলিভিশন, বই এবং ম্যাগাজিনে ব্যবহৃত

সিনহুয়া

গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের অফিসিয়াল বার্তা সংস্থা সিনহুয়া। চায়না নিউজ সার্ভিস চালিত চীনের বৃহত্তম সংবাদ সংস্থাটির সদর দপ্তর বেইজিংয়ে। সারা বিশ্বে সিনহুয়ার ১০৭টি ব্যুরো অফিস ছাড়াও চীনজুড়ে প্রতিটি প্রদেশে একটি করে মোট ৩১টি ব্যুরো এবং একটি মিলিটারি ব্যুরো রয়েছে। চীনা সংবাদপত্রগুলো প্রতিটি প্রদেশের নিজস্ব প্রতিনিধির পরিবর্তে সিনহুয়ার ওপর নির্ভরশীল। সিনহুয়ার মালিকানায় আছে ২০টি সংবাদপত্র ও এক ডজন সাময়িকী। দি সিনহুয়া প্রেস এজেন্সি ১৯৩১ সালের নভেম্বরে রেড চায়না নিউজ নামে আত্মপ্রকাশ করে। বর্তমানে সিনহুয়া চীনা, ইংরেজি, ফ্রেঞ্চ, রুশ, স্প্যানিশ ও আরবি ভাষায় সংবাদ সরবরাহ করছে।

পিটিআই

ভারত তথা দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া সংক্ষেপে পিটিআই। এটি সমবায়ভিত্তিক একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। এর সদর দপ্তর দিল্লিতে। সাড়ে চার শর বেশি ভারতীয় সংবাদপত্রের সমন্বয়ে এই সংস্থাটি গঠিত। প্রায় দুই হাজার কর্মচারী ও দেশব্যাপী ১৫০টি অফিস নিয়ে এর কার্যক্রম বিস্তৃত। ১৯৪৭ সালে ভারতের স্বাধীনতা অর্জনের পর এর আত্মপ্রকাশ ঘটে এবং পরবর্তীতে এটি রয়টার্সের মতো বড় বার্তা সংস্থায় রূপ নেয়। হিন্দি ও ইংরেজি ভাষায় বার্তা সংস্থাটি সংবাদ সরবরাহ করে।

এএপি

এএপি বা অস্ট্রেলিয়ান বার্তা সংস্হা। ফেয়ার ফ্যাক্স, দ্য হেরাল্ড ও সাপ্তাহিক টাইমস্ মিলে ১৯৩৫ সালে এটি প্রতিষ্ঠা করে। ১৭৫ জন সাংবাদিক ও কর্মচারী নিয়ে পরিচালিত এএপির লন্ডন ও লস অ্যাঞ্জেলেসসহ চারটি ব্যুরো অফিস রয়েছে।

পিপিআই

পিপিআই বা পাকিস্তান প্রেস ইন্টারন্যাশনাল ১৮৫৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এর সদর দপ্তর পাকিস্তানের করাচিতে। ১৯৬৮ সালে পিপিআইর নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস অব পাকিস্তান। ১৯৫৮ সালে সংস্থাটি টেলিপ্রিন্টার সংযোগ নেয়। ১৯৬০ সালে করাচি, রাওয়ালপিন্ডি, লাহোর ও ঢাকার প্রথম সারির সংবাদপত্রগুলো এর গ্রাহক হয়।

পিআর নিউজওয়্যার

এটি একটি বেসরকারি বার্তা সংস্থা। এর সদর দপ্তর নিউইয়র্কের মানহাটানে। বিশ্বের ১৬টি দেশে পিআর নিউজওয়্যারের শাখা কার্যালয় রয়েছে। বর্তমানে ১৩৫টি দেশে পিআর নিউজওয়্যার সংবাদ সুবিধা দিয়ে থাকে। ১৯৫৪ সালে প্রতিষ্ঠিত বার্তা সংস্থাটি অ্যাসোসিয়েট প্রেস, রয়টার্সসহ বড় কয়েকটি সংবাদ সংস্থার সঙ্গে সংবাদ আদান-প্রদান করে থাকে।

কিয়োডো নিউজ

এটি জাপানের অলাভজনক বার্তা সংস্থা। ১৯৪৭ সালে প্রতিষ্ঠিত বার্তা সংস্থাটি জাপানের রেডিও-টেলিভিশন ও অধিকাংশ সংবাদপত্রে সংবাদ পরিবেশন করে। এর গ্রাহকসংখ্যা প্রায় ৫০ মিলিয়ন। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে কিয়োডো দৈনিক দুই শতাধিক সংবাদ পাঠিয়ে থাকে। কিয়োডো জাপানি, চীনা, কোরীয় ও ইংরেজি ভাষায় সংবাদ দেয়। বর্তমানে এক হাজার সাংবাদিক ও ফটোগ্রাফার দিয়ে ৭০টি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সংবাদ আদান-প্রদান করছে এই বার্তা সংস্থা।

(ঢাকাটাইমস/২৪অক্টোবর/মোআ)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

গণমাধ্যম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত