বৌদ্ধরা না চাইলে রোহিঙ্গাদের ফেরত নয়: মিয়ানমার সেনাপ্রধান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৬ নভেম্বর ২০১৭, ২২:৩৭ | প্রকাশিত : ১৬ নভেম্বর ২০১৭, ২২:৩৫

রাখাইনের বসবাসরত ‘আসল মিয়ানমারের নাগরিকরা’ বা সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধরা মেনে না নিলে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা মুসলমানদের ফেরত নেয়া হবে না জানিয়েছেন দেশটির সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইয়াং। তার এই বক্তব্যে রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার বিষয়ে মিয়ানমারের সরকারের অঙ্গীকারের বিষয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর দিয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার রোহিঙ্গাদের ফেরতের বিষয়টি যে বেশ দীর্ঘায়িত হবে তার ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেছেন, রাখাইনে বসবাসরত বৌদ্ধরা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়টি মেনে না নিলে তাদের বাংলাদেশ থেকে ফেরত আনা হবে না।

রাখাইন বৌদ্ধদের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু মুসলিমদের ঘৃণা করে। বৌদ্ধদের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের ঘরে আগুন লাগানোর অভিযোগ রয়েছে।

সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইয়াং বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রস্তাব অনুযায়ী দলে দলে রোহিঙ্গা মুসলমানেরা মিয়ানমারে ঢুকবে এ ধরনের প্রস্তাব মেনে নেয়া হবে না।’ বাংলাদেশে পরিবারসহ পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ‘সন্ত্রাসী’ বলেও আখ্যা দেন তিনি।

রোহিঙ্গা মুসলমানেরা যেভাবে দলে দলে বাংলাদেশে ঢুকেছে ঠিক সেভাবে তাদেরকে নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার সুযোগ দিতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রস্তাব দেয়ার হয়েছে। ওই প্রস্তাবের পরই এ বিষয়ে মুখ খুললেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই মিয়ানমার ও বাংলাদেশ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রত্যাবাসনের বিষয়ে আলোচনা করে আসছে।

গত ২৫ আগস্ট থেকে রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নতুন করে হামলা শুরু করে মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনী। এর ফলে অন্তত ছয় হাজার মুসলমান নিহত ও হাজার হাজার মানুষ আহত হয়েছে।

এ সময়ের মধ্যে ছয় লাখের রোহিঙ্গা মুসলমান মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশে ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী মানবেতর জীবনযাপন করছে।

মিয়ানমার সরকার রাখাইনে সহিংসতা বন্ধের দাবি করলেও বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে, সেখানে মুসলমানদের ওপর হত্যা-নির্যাতন অব্যাহত রয়েছে।

সূত্র: ডেকান ক্রনিক্যাল ও পার্স টুডে

(ঢাকাটাইমস/১৬নভেম্বর/এসআই)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর