চট্টগ্রামে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

চট্টগ্রাম ব্যুরো, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৭ নভেম্বর ২০১৭, ১৩:০২

চট্টগ্রামে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও তিনজন।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মীরের হাট মুন্সীর মসজিদ এলাকায় সেনাবাহিনীর গাড়ির ধাক্কায় অটোরিকশার দুই যাত্রী এবং বৃহস্পতিবার দিনগত রাত আড়াইটায় সীতাকুন্ড উপজেলার টেরি আইল এলাকায় বাস চাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হন।

হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর জানান, সেনাবাহিনীর কয়েকটি গাড়ি আজ শুক্রবার সকালে হাটহাজারী উপজেলার চারিয়া ফায়ারিং রেঞ্জে যাচ্ছিল। গাড়িগুলো উপজেলার মীরের হাটের মুন্সীর মসজিদ এলাকায় পৌঁছালে এরমধ্যে একটি গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুটো অটোরিকশাসহ খাদে পড়ে যায়।

পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা খাদ থেকে দুইজনের লাশ উদ্ধার করেন। আরও দুইজনকে আহত অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নিহতদের একজনের নাম রোকেয়া বেগম (৪৫)। অন্যজন আনুমানিক ৩৫ বছর বয়সী একজন পুরুষ। তার নাম জানা যায়নি। আহতরা হচ্ছেন সবুর (২৭) ও আশরাফ সিদ্দিক (৩০)। দুজনের অবস্থায় আশঙ্কাজনক বলে জানান ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর।

এদিকে বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) দিনগত রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুন্ড উপজেলার টেরি আইল এলাকায় দুই বাসের মাঝখানে চাপা পড়ে মোটরসাইকেল আরোহী দুই বন্ধু নিহত হয়েছেন।

নিহত দুই বন্ধুর একজনের নাম অপু দাশ (২৫), অপরজনের নাম বিদ্যুত দাশ (২৭)। এই দুর্ঘটনায় বাপ্পী দাশ নামে তাদের আরও এক বন্ধু গুরুতর আহত হয়ে চট্টগ্রাম ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

কুমিরা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনসপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম বলেন, তিন বন্ধু মিলে একটি মোটরসাইকেলে করে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকার দিকে যাচ্ছিলেন। সীতাকুন্ডে পৌঁছুলে তারা দুর্ঘটনায় পড়েন। রাত আড়াইটার দিকে সড়কে মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা আমাদের খবর দেন। পরে আমরা গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করি। কীভাবে তাদের মৃত্যু হয়েছে তা আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন ঢাকা ও চট্টগ্রামমুখী দুই বাসের মাঝখানে চাপা পড়েন তারা। এতে তাদের মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। আহত বাপ্পী দাশকে চট্টগ্রাম ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম জানান, নিহত দুজনেই নগরীর ঘাটফরহাদবেগ পূজা উদযাপন পরিষদের সক্রিয় সদস্য। এদের মধ্যে অপু দাশ ঘাটফরহাদবেগ এলাকার ফেন্সি টেইলাসের মালিকের ছেলে। বাকিজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে তারা সবাই ওই এলাকায় থাকেন। অপু ও বাপ্পী একে অপরের চাচাতো ভাই।

এছাড়া হাটহাজারী উপজেলা থেকে সেনাবহিনীর গাড়ির ধাক্কায় আহত চারজনকে আজ শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন। বাকি দুজনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানান তিনি।

(ঢাকাটাইমস/১৭নভেম্বর/আইকে/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বন্দর নগরী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত