একদিন আগেই ভেঙে গেল জোড় ইজতেমা!

ইফতেখার রায়হান, টঙ্গী (গাজীপুর)
 | প্রকাশিত : ২০ নভেম্বর ২০১৭, ২১:৫৪
ফাইল ছবি

রহস্যজনক কারণে একদিন আগেই সমাপ্তি ঘটল টঙ্গীর তুরাগ তীরের শুরু হওয়া পাঁচ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমা। সোমবার বিকালে আছরের নামাজের পর বাংলাদেশের মাওলানা মোহাম্মদ জোবায়ের জোড় ইজতেমার আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন। গত শুক্রবার বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্যদিয়ে পাঁচ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। সে হিসেবে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) জোহরের নামাজের পর আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হওয়ার কথা ছিল পাঁচ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমার। তবে হঠাৎ করেই একদিন আগে সোমবার বিকালে মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হয় এই ইজতেমা।

জানা গেছে, জোড় ইজতেমার প্রথম দিন থেকেই দিল্লির মাওলানা মোহাম্মদ সাদের অনুসারীদের ময়দানে প্রবেশে বাধা দিতে সক্রিয় হয়ে উঠেন ইজতেমা ময়দানে উপস্থিত মুসল্লিরা। সোমবার বিকালে দিল্লির মাওলানা মোহাম্মদ সাদ ইজতেমা ময়দানে উপস্থিত হবে এমন খবরে ময়দানে থাকা কিছু মুসল্লি বাঁশের লাঠি নিয়ে অবস্থান নেন। এসময় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী নিয়ন্ত্রণে রাখতে গাজীপুর জেলা পুলিশের নির্দেশে একদিন আগেই সোমবার বাদ আসর মোনাজাতের মধ্যদিয়ে জোড় ইজতেমার সমাপ্তি ঘটে। পাঁচ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমা পঞ্চম দিন মঙ্গলবার দুপুরে দিল্লির মাওলানা মোহাম্মদ সাদের মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবার কথা ছিল।

ইজতেমা ময়দানে আগত কয়েকজন মুসল্লি জানান, প্রশাসনের নির্দেশে একদিন আগেই শেষ হয়েছে জোড় ইজতেমা। মঙ্গলবার জোড় ইজতেমা শেষ হবার কথা থাকলেও অভ্যান্তরীণ দ্বন্দ্ব এবং দিল্লির শীর্ষস্থানীয় মুরব্বিদের সাথে পাকিস্তানের তাবলিগ জামাতের মত পার্থক্য সৃষ্টি হওয়ায় একদিন আগেই সমাপ্তি ঘটেছে জোড় ইজতেমার।

এ বিষয়ে জানতে ইজতেমার আয়োজক কমিটির মুরব্বি মাওলানা মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, আমি জরুরি মিটিংয়ে ঢাকায় এসেছি। শুনেছি, একদিন আগেই মোনাজাতের মাধ্যমে জোড় ইজতেমা শেষ হয়েছে। তবে কেন এমনটি ঘটল সেটি আমার জানা নেই।

তিনি বলেন, পাঁচ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমার পঞ্চম দিন মঙ্গলবার দুপুরে দিল্লির মাওলানা মোহাম্মদ সাদের মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবার কথা ছিল।

এ ব্যাপারে টঙ্গী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.ফিরোজ তালুকদার বলেন, শুনেছি- জোড় ইজতেমার সমাপ্তি হয়েছে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত আমার জানা নেই। ইজতেমার আয়োজকরা এ বিষয়ে বলতে পারবেন।

ইজতেমা ময়দানে আইনশৃলা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে এমন আশঙ্কা রয়েছে কিনা এ প্রশ্নের জবাবে ওসি বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। 

প্রসঙ্গত, প্রতি বছর বিশ্ব ইজতেমা শুরু হওয়ার আগে পাঁচ দিনের জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। পাঁচ দিনের জোড় ইজতেমায় তিন চিল্লাওয়ালা পুরানো সাথীরা অংশগ্রহণ করে থাকেন। এতে ঢাকা জেলার তবলিগ জামাতের মুসল্লিসহ দেশি-বিদেশি লাখো ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। পাঁচ দিনব্যাপী এই সম্মেলনে কালেমা, নামাজ, ইমান-আমলসহ ছয় উসুল সম্পর্কে দেশি-বিদেশি শীর্ষ মুরব্বিরা বয়ান করেন। এছাড়া মুসল্লিদের উদ্দেশে ইজতেমার গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরা হয়। পরবর্তীতে তারা জোড় শেষে আবার ইসলামের দাওয়াতের কাজে বের হন এবং আগামী বছর বিশ্ব ইজতেমার মূল পর্বে শরিক হবেন। ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হবে ২০১৮ সালের ১২ জানুয়ারি। প্রথম পর্ব শেষে চারদিন বিরতি দিয়ে ১৯ জানুয়ারি দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়ে ২১ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে ২০১৮ সালের বিশ্ব ইজতেমার সমাপ্তি ঘটবার কথা রয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২০নভেম্বর/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত