স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের কাছে চাঁদা দাবি, পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ নভেম্বর ২০১৭, ১৮:৪১

মানিকগঞ্জ স্বর্ণ শিল্পী সমিতির কাছে দুই কোটি চাঁদা দাবির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে  অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার মানিকগঞ্জ সদর সার্কেল আব্দুল আওয়াল খানকে অবশেষে প্রত্যাহার করে পুলিশের হেডকোয়ার্টারে সংযুক্ত করা হয়েছে। মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান ঢাকাটাইমসকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মানিকগঞ্জ স্বর্ণ শিল্পী সমিতির অভিযোগ, গত ৮ নভেম্বর জেলা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল আউয়াল ও এনএসআইয়ের সহকারী পরিচালক আসিফ হোসেন মানিকগঞ্জ স্বর্ণশিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রঘুনাথ রায়কে ওই পুলিশ কর্মকর্তার কার্যালয়ে ডেকে নেন। এরপর চোরাই ও ডাকাতির স্বর্ণ কেনাবেচাসহ অবৈধ ব্যবসার অভিযোগ এনে তাদেরকে ভয়ভীতি দেখানো হয়।  ঝামেলা এড়ানোর জন্য তাদের কাছে দুই কোটি টাকা চাঁদা দাবি করেন ওই দুই কর্মকর্তা।

স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, পরদিন আবারও ওই পুলিশ কর্মকর্তার কার্যালয়ে  ডেকে নেয়া হয় স্বর্ণশিল্পী সমিতির সভাপতি আতোয়ার রহমান তোতা ও সাধারণ সম্পাদত রঘুনাথ রায়কে। সেখানে তাদের কাছে একই অংকের টাকা দাবি করা হয়। পরে ওই দুই কর্মকর্তা চাঁদার পরিমাণ নামিয়ে ৭০ লাখ নির্ধারণ করে দেন। স্বর্ণশিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে এনিয়ে সভা করে দোকানপ্রতি দুই থেকে ২৫ হাজার টাকা চাঁদা নির্ধারণ করা হয়। বেশ কিছু দোকান থেকে টাকা তোলাও হয়।

তবে গত ১৫ নভেম্বর সন্ধ্যায় শহরের নাগ জুয়েলার্সে ডাকাতির ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা। এরপর প্রকাশ হয়ে পড়ে দুই কোটি টাকা চাঁদা চাওয়ার বিষয়টি। এনিয়ে গত ১৮ নভেম্বর একটি সংবাদপত্রে দুই কোটি টাকা চাঁদা দাবির সংবাদ ফলাও করে প্রকাশ হয়। 

পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান ঢাকাটাইমসকে বলেন, স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগের ভিত্তিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল আওয়ালকে পুলিশের হেডকোয়ার্টারে সংযুক্ত করা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২১নভেম্বর/প্রতিনিধি/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত