মানিকছড়িতে ইবতেদায়ির প্রশ্নে পিইসি পরীক্ষায় দায়িত্বপ্রাপ্তদের অব্যাহতি

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ নভেম্বর ২০১৭, ২২:৫৯
ফাইল ছবি

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার  মানিকছড়ি  ‘রাণী নিহার দেবী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে ৩০ জন পিইসি পরীক্ষার্থী কেন্দ্রের ইবতেদায়ির প্রশ্ন দিয়ে পিইসি পরীক্ষা নেয়ায় ওই কেন্দ্রের সচিব,ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, হল সুপার ও পর্যবেক্ষকদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

গত ১৯ নভেম্বর প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার প্রথমে দিনে ইংরেজি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। একটি কক্ষের ৩০ জন পিইসি পরীক্ষার্থী এ সময় পরীক্ষার্থীরা প্রশ্ন কমন হয়নি মর্মে প্রতিবাদ করলেও পর্যবেক্ষকরা বিষয়টি জানলেও আমলে না নিয়ে পরীক্ষা সম্পন্ন করেন।

পরীক্ষা শেষে শিক্ষার্থীরা হল থেকে বের হয়ে এসে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট স্কুলশিক্ষক ও অভিভাবকদের জানায়। এরপর হল সুপার বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানান। কিন্তু ওই শিক্ষা কর্মকর্তা বিষয়টি গুরুত্ব না দিয়ে শিক্ষার্থীদের পাস করিয়ে দেবেন মর্মে সান্তনা দিয়ে দায়িত্ব শেষ করেন।

পরে এ বিষয়ে ঢাকাটাইমসসহ বিভিন্ন অনলাইন ও জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলে উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি আমলে নিয়ে সংশ্লিষ্টদের তলব করেন। এতে ওই কেন্দ্র সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্তরা তাদের লিখিত বক্তব্যে বলেন, ভুল ধরা পড়ার সাথে সাথে বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করা হয়। তিনি শিক্ষার্থীদের এ বিষয়ে পর্যাপ্ত নাম্বার দিয়ে পাস করিয়ে দেবেন বলে আশ্বস্ত করার কারণে এ বিষয়ে আর কাউকে অবহিত করা হয়নি।

এদিকে মানিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.  আহ্সান উদদীন মুরাদ গত ২১ নভেম্বর বিকালে পিইসি ও ইবতেদায়ি ছয় কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্র সচিব, সহকারী সচিব, সরকারি অফিসার, হল সুপার ও কক্ষের পর্যবেক্ষকদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন।

 এ সময় কেন্দ্র সংশ্লিষ্টরা ভুল স্বীকার করে পৃথকভাবে লিখিত জবাব দেন। পরে রাতেই তিনি দায়িত্ব অবহেলার কারণে ওই কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্র সচিব, সহকারী সচিব, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, হল সুপার,সহকারী হল সুপারকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেন এবং ওই কক্ষের দুজন পর্যবেক্ষককে পুরো পরীক্ষাকালে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি ঘোষণা করে চিঠি দেন।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে নতুন দায়িত্বপ্রাপ্তরা হলেন- কেন্দ্র সচিব দীলিপ কুমার দেব, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো. আবদুল মন্নান পাটোয়ারী, হল সুপার শিখা রাণী হাওলাদার, সহকারী হল সুপার মো. আনোয়ার হোসেন।

(ঢাকাটাইমস/২২নভেম্বর/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত