ডোনাল্ড ট্রাম্পের নামে ঢাকায় রেস্টুরেন্ট !

সিরাজুম সালেকীন, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৫:৫৮

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দিয়ে রাষ্ট্রপ্রধান বানালেও খোদ আমেরিকার লোকজনের বিরাট এক অংশই তাকে দেখতে পারে না। নিজের বাগাড়ম্বর আর কুচুটেপনার জন্য ট্রাম্পের নামে কুৎসাও কম হয়নি। আবার এটাও ঠিক শুধু আমেরিকায় নন, সারা বিশ্বেই তার পরিচিতি আছে।

তাই বলে ট্রাম্পের নামে রেস্টুরেন্ট? তাও আবার ঢাকায়? অবাক লাগলেও এটাই হয়েছে।

খোদ রাজধানীর বুকে এমনই এক ক্যাফে চালু করেছেন নগরীর দুই তরুণ। নিজেদেরকে ডোনাল্ড  ট্রাম্পের বিরাট ভক্ত বলে দাবী করেন তারা। ডোনাল্ড ট্রাম্প তাদের কাছে আদর্শ ও সফল ব্যবসায়ী। তাই নিজেরা যখন একটা ক্যাফে খোলার সিদ্ধান্ত নেন, তখন এর নাম রাখেন ‘ট্রাম্প ক্যাফে’। শুধু নাম দিয়েই খান্ত হননি। ক্যাফের ভেতরেই রাখা আছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি ছয় ফুট সাইজের বিশাল ছবি। দেখে মনে হবে ডোনাল্ড ট্রাম্প একটি কালো কোট, সাদা শার্ট ও লাল টাই পরে আপনার আসবার অপেক্ষাতেই দাড়িয়ে আছেন।আপনি চাইলেই নিজের ইচ্ছে মতো মোবাইল ফোনে সেলফি তুলতে পারবেন ট্রাম্পের সাথে।

ধানমন্ডির জিগাতলার জাপান বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালের পাশেই ‘কেয়ারী ক্রিসেন্ট’ ভবন। সেই ভবনের তিন তলাতেই আস্তানা গেড়েছে ‘ট্রাম্প ক্যাফে’।নামের কারণে এরই মধ্যেই ঢাকার বাসীন্দাদের ভেতর জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ট্রাম্প ক্যাফে। ম্যাক্সিকান সাব স্যান্ডুইচ, ক্লাব স্যান্ডুইচ, গ্রিন এ্যাপল মকটেল থেকে শুরু করে ইটালিয়ান চিজি পাস্তা আর বেশ কয়েক রকমের কফি মেলে এখানে। খরচও খুব একটা বেশি না।

ক্যাফের মালিকদের একজন সাইফুল ইসলাম। নিজেদের উদ্যোগ নিয়ে ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘ট্রাম্প কে স্রেফ ভালোবাসি, তাকে সফল ব্যবসায়ী মনে করি, তাই তার নামেই ক্যাফেটি চালু করেছি। এই বছরের জানুয়ারীতে এই নামে ক্যাফে খোলার অনুমোদন পাই। সব কিছু সাজিয়ে গুছিয়ে পুরোদমে চালু করতে করতে এপ্রিল মাস চলে আসে।’

ট্রাম্প ক্যাফের আরেক মালিক ওমর ফারুখ ঢাকাটাইমস কে বলেন, ‘ট্রাম্প ক্যাফে নাম দেবার কারণে এরই মধ্যে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। খাবার মান, পরিবেশ, ফ্রি ওয়াই ফাই সহ বিভিন্ন দিক অনুসরণ করেই এগিয়ে নিয়ে যাবার চেষ্টা করা হচ্ছে। এছাড়া এখানকার বিশেষ একটি দিক হল ট্রাম্পভক্তরা ক্যাফেতে আসলে ট্রাম্পের জীবনী পড়বার, তার পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে জানবার ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছে। সব সময় আমরা টেলিভিশনে সিএনএন চ্যানেল চালু রাখি। আমাদের ইচ্ছা ট্রাম্পের কাছে এই বার্তাটা পৌছে যে তাকে বাংলাদেশের মানুষ ভালোবাসে এবং তার নামে একটি ক্যাফে চালু করা হয়েছে।’



সাইফুল ইসলাম জানান, ‘আমেরিকায় ট্রাম্প ক্যাফে নামে খাবারের দোকান আছে। সেটার মালিক ডোনাল্ড ট্রাম্প না হলেও নাম দেওয়া হয়েছে ট্রাম্পের নামে। সেখানকার খাবারের মেন্যু অনুযায়ী আমাদের ক্যাফের মেন্যু সাজানো হয়েছে। তবে আমাদের দেশে প্রচলিত থাই, চাইনিজ, ইন্ডিয়ান মিলিয়ে প্রায় আড়াই’শ পদের খাবার পাবেন আমাদের মেন্যুতে। ক্যাফেতে এরই মধ্যে ৫০ জন একসাথে বসে খেতে পারবেন এমন সিট ক্যাপাসিটি করা হয়েছে। কাপল জোন, ফ্যামিলি জোন, জন্মদিনের উৎসব ও ধূমপানের জন্য আলাদা জায়গা করা আছে।’

বন্ধুদের সাথে বেড়াতে আসা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সজল নামে এক ছাত্র বলেন, ‘ট্রাম্প ক্যাফে নাম দেখেই প্রথম এখানে এসেছিলাম। প্রথম দিন ট্রাম্পের সাথে ছবি তোলার পর সেটা ফেসবুকে আপলোড করার পরই বন্ধুদের  সাথে আবার খেতে আসা হয়েছে। খাবারমান ও পরিবেশ সবই ভালো লাগে বললেন সজল।’

ট্রাম্প ক্যাফের খাবার মেন্যুর মধ্যে রয়েছে, ট্রাম্প স্পেশাল চিকেন ফ্রাই। দাম পড়বে ৩৫০ টাকা। এছাড়া ট্রাম্প স্পেশাল চাওমিন ৩২০ টাকা, ট্রাম্প স্পেশাল ফ্রায়েড রাইস ৩৫০ টাকা, ট্রাম্প স্পেশাল কাবাব ৮৫০ টাকা। সাব স্যান্ডুইচ, ক্রিসপি বার্গার, নান, ক্লাব চিকেন সহ হরেক রকম খাবার মেন্যু। প্রকার ভেদে এর দাম ৩৫০ টাকার মধ্যেই পড়বে। এছাড়া কফি, মিল্কশেক, লাচ্ছি, আইসক্রিমসহ হরেক রকম খাবার মেন্যুতে রয়েছে।

সাইফুল এবং ফারুখের স্বপ্ন, ডোনাল্ড ট্রাম্প কখনো বাংলাদেশ সফরে আসলে তাকে নিজেদের ক্যাফেতে পায়ের ধুলো দিবে যাবার আমন্ত্রণ জানাতে চান তারা। এরই মধ্যে ক্যাফে চালু করে দিলেও এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা তারা শুরু করেননি। তাদের ইচ্ছে সামনের বছর বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটকে এনে ক্যাফের উদ্বোধন করানো। তার সম্মতি পাবার জোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলেও জানালেন তারা।

(ঢাকাটাইমস/২৪ নভেম্বর/সিসা/কেএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত