গাইবান্ধা জেলা পরিষদের দুর্নীতি তদন্তে দুদক

গাইবান্ধা প্রতিনিধি, ঢাটাকাটাইমস
| আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৭:৫০ | প্রকাশিত : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৭:৪৫

গাইবান্ধা জেলা পরিষদের বিভিন্ন প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে মাঠে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) টিম।

জেলা পরিষদের নিজস্ব তহবিল থেকে নামে-বেনামে কোটি টাকা উত্তোলন করা হয়েছে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সহযোগিতায়। কেবল প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মচারীর ছেলের নামে একটি কনসালটেন্সি ফার্মকেই মার্কেটের নকশার জন্য দেয়া হয়েছে প্রায় ৪০ লাখ টাকা। ঘটনাটি তদন্ত করছেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলীর নেতৃত্বে দুদকের একটি টিম।

দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আল জানান, গাইবান্ধা জেলা পরিষদে কয়েক কোটি টাকা প্রকল্পের নামে আত্মসাৎ করা হয়েছে। তাছাড়া নিজস্ব তহবিল থেকে সদরসহ চার উপজেলায় সাতটি মার্কেট নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয় গাইবান্ধা জেলা পরিষদ। কোন ধরনের দরপত্র আহবান না করেই এই মার্কেটের প্ল্যান আর ডিজাইনের কাজ দেয়া হয় জেলা পরিষদের হিসাব রক্ষক শামীম আহমেদের ছেলে সাইফুল ইসলামের প্রতিষ্ঠান প্রাইম কনসালটেন্সি ফার্মকে। শুধু তাই না জেলা পরিষদের নির্বাচন-পূর্ব সময়ে প্রতিষ্ঠান থেকে দান, অনুদান বা কোন প্রকল্পের অর্থ অবমুক্ত না করার জন্য নির্দেশনা থাকলেও তা অমান্য করে তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচিতদের শপথ ঘোষণার আগ পর্যন্ত ৪৯ দিনে ৪৭টি খাতের বিপরীতে কেবল কাগজ-কলম আর ভাউচারে কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা তদন্ত করছি।

যাদের নামে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে, তারা হলেন- জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম মাহাবুবুর রহমান, প্রকৌশলী সিদ্দিকুর রহমান, হিসাবরক্ষক শামীম আহমেদ।

(ঢাকাটাইমস/৭ডিসেম্বর/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত