আলফাডাঙ্গা আ.লীগ নেতা মাসুদুর রহমানের দাফন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১১:৩১ | প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১১:১৩
ছবির ইনসেটে প্রয়াত মাসুদুর রহমান

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক মাসুদুর রহমান মাসুদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গোপালপুরের বাজরার পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে নয়টায় আলফাডাঙ্গার আরিফুজ্জামান এ জেড পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এস এম আকরাম হোসেন, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান দোলন, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য শেখ শওকত আহমেদ, বোয়ালমারী আওয়ামী লীগ নেতা লিটন মৃধাসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন।

পরে সকাল ১০টায় গোপালপুরের বাজড়া গ্রামের বাজড়া ঈদগাহ মাঠে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় অংশ নিয়ে কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ‘মাসুদুর রহমান ছিলেন আওয়ামী লীগের অন্তঃপ্রাণ কর্মী। তার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগতভাবে অনেক সুসম্পর্ক ছিল। এই অঞ্চলের আওয়ামী লীগের জন্য তার কতটুকু ত্যাগ ও ভালোবাসা ছিল আমি তা ভালোভাবে দেখেছি।’

কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান দোলন বলেন, ব্যক্তিস্বার্থের চেয়ে মাসুদুর রহমানের কাছে দল অনেক বড় ছিল। অল্প সময়ের মধ্যে মানুষের মন জয় করার ক্ষমতা ছিল তার। তার অকাল মৃত্যুতে আওয়ামী লীগের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি হলো।

ঢাকাটাইমস ও সাপ্তাহিক এই সময় সম্পাদক দোলন মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন। এবং আল্লাহ তায়ালা যেন তাকে জান্নাত নসিব করেন সেই দোয়া করেন। পরে পারিবারিক কবরস্থানে মাসুদুর রহমানকে দাফন করা হয়।

উল্লেখ্য, গতকাল রবিবার দুপুর একটার দিকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মাসুদুর রহমান। দীর্ঘদিন ধরে কিডনি রোগে ভুগতে থাকা মাসুদুরের চিকিৎসার দায়িত্বভার গ্রহণ করে কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশন। যার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান দোলন।

মাসুদুর রহমান ছাত্রজীবন থেকেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সপক্ষে রাজনীতি করেছেন। তিনি আলফাডাঙ্গা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া ফরিদপুর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন।

তাঁর বাবা মো. অলিয়ার রহমান একজন মুক্তিযোদ্ধা। তিনি আলফাডাঙ্গার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠ কামারগ্রাম কাঞ্চন একাডেমিতে দীর্ঘদিন শিক্ষকতা করেছেন। সবশেষ তিনি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কর্মরত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/১১ডিসেম্বর/এইচএফ/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত