পেছনে তাকাবেন না, হাথুরু ইস্যুতে সাকিবের মুখে তালা

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৮:০৩ | প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৭:৩১

অধিনায়কত্বের প্রথম পর্ব মোটেও সুখের হয়নি। সাকিবের কাছ থেকে টেস্ট অধিনায়কত্ব কেড়ে নিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল মুশফিককে। ৬ বছর পর আবার টেস্ট অধিনায়কত্ব ফিরে পেয়েছেন সাকিব। ৬ বছর অনেক সময়। এ সময়ে দলের চেহারা অনেক পাল্টেছে। সাকিবও আগের চেয়ে অনেক পরিপক্ক। তাই আগের পর্বে কী হয়েছিল তা মাথায় আনছেন না বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার।

সোমবার সাংবাদিকদের সাকিব বলেন,‘জীবনে কত কিছুই হয়…। আসলে আমার ওটা মনে নেই। আমি পেছন ফিরে তাকাতে চাই না।নতুন দায়িত্ব পেলাম। টেস্টে গত কিছুদিন আমরা ভালোই করেছি। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে জিতলাম, অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের সঙ্গে জিতলাম এখানে। এই জায়গা থেকে কতটা ভালো করা যায়, সেই চেষ্টাই থাকবে আমরা।’

আগের তুলনায় এবার কাজটা একটু সহজ হবে বলে মনে করছেন সাকিব। বললেন,‘অবশ্যই কাজটা সহজ হবে এবার। এখন বেশির ভাগ ক্রিকেটাররাই প্রায় সবসময় পারফর্ম করছে। ক্রিকেটাররা যখন পারফর্ম করে, অধিনায়কের ওরকম কোনো কাজই থাকবে না। আশা করি সবাই মিলে ভালো করবে। সবাই মিলে ভালো করলেই দল ভালো করবে।’

২০০৯ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত টেস্ট দলের নেতৃত্ব দেন সাকিব। ৯টি টেস্টে নেতৃত্ব দিয়ে জয় পান একটিতে। তবে ওয়ানডে অধিনায়ক হিসাবে মোটামুটি সফল তিনি। ৫০ ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে জেতাতে পেরেছেন ২৩টি ম্যাচ, হার ২৬টি। অন্যদিকে দেশকে ৬টি টি-টায়েন্টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে হেরেছেন সবকটিতেই।

নতুন পরিস্থিতি এখন বাংলাদেশ দলের সামনে। এটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে কতটা প্রস্তুত- এমন প্রশ্নে সাকিব বলেন,‘এখন আপাতত বিপিএল চ্যালেঞ্জ নিয়ে আছি। বিপিএল শেষ হোক, জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু হলে দেখা যাবে কি কি চ্যালেঞ্জ আছে। যখন পরিকল্পনা করা হবে, তখন বোঝা যাবে।তবে পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়াটা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ।’

দেশের বাইরে ভালো করার তেমন দৃষ্টান্ত নেই টাইগারদের। সামনে বাইরে সিরিজই বেশি- কতটা প্রস্তুত? সাকিব বললেন,‘প্রতিটি টুর্নামেন্ট বা সিরিজই কঠিন। সেটা দেশে হোক বা বাইরে। হয়ত দেশে একটু স্বস্তি বোধ করি আমরা। বিদেশে যেহেতু সাফল্য নেই, সেহেতু আমাদের জন্য কঠিন হয়ে যায়। একই সঙ্গে এটাও সুযোগ ভালো কিছু করার। কোনো না কোনো কিছু তো কেউ না কেউ শুরু করবে। যদি শুরু হয়, তাহলে খারাপ কী! যদিও কাজটা কঠিন। কিন্তু আমাদের যে দল আছে, আমরা যেভাবে খেলছি, অনেক কিছু করা সম্ভব।’

৬ মাসের ছুটি চেয়েছিলেন বিসিবির কাছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে অবশ্য ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে যোগ দেন সাকিব। এখন অধিনায়ক হয়েছেন। ৬ মাসের ছুটি নিয়ে এখনকার ভাবনা কী? এমন প্রশ্নে সাবিবের এক কথায় উত্তর,‘দেখা যাক, কি হয়…’।

হাথুরুসিহে অনেক সমালোচনা ও কথা বলে গেছেন সিনিয়র খেলোয়াড়দের নিয়ে। তবে এ বিষয়ে নির্ভার সাকিব। এ বিষয়ে কনো মন্তব্য করতে চাননি সাকিব। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে সাকিবের ছুটি মেনে নিতে চাননি হাথুরু। এ নিয়েও কোনো কথা বলতে রাজি হননি সাকিব।

টেস্টে সাকিবের ডেপুটি হয়েছেন রিয়াদ। এটাকে ভালো বিষয় মনে করছেন সাকিব। রিয়াদের অভিজ্ঞতা কাজে আসবে বলে মনে করছেন তিনি। সাকিব বলেন,‘ আমরা বেশ কয়েকজনই আছি, যারা দলের নেতা। যে কোনো সিদ্ধান্তই আমরা একসঙ্গে মিলেই নেই। কেউ অধিনায়ক থাক বা না থাক, সেটা ব্যাপার নয় যখন আমরা মাঠে খেলতে নামি। সবার সাহায্যই দরকার হবে। আর রিয়াদ ভাই তো কয়েক বছর ধরেই বিপিএলে ভালো অধিনায়কত্ব করছে। নেতৃত্বগুণ উনার ভেতর অনেক আগে থেকেই আছে। আমার কাছে মনে হয়, আমার জন্য কাজটি সহজ হবে।’

(ঢাকাটাইমস/১১ডিসেম্বর/ডিএইচ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত