বঙ্গবন্ধুর ভাষণের স্বীকৃতি উপলক্ষে জগন্নাথে সেমিনার

জবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৯:২৭

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণকে ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড’-এর তালিকায় অন্তর্ভুক্তি উপলক্ষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের উদ্যোগে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মুকুল বোস।

সেমিনারের মূল আলোচক বাংলাদেশ তথ্য কমিশনের তথ্য কমিশনার ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. খুরশীদা বেগম বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে মুক্তির পথের কথা, দায়িত্ববোধের কথা, গণতন্ত্রের যাত্রাপথের কথা, জাতি নির্মাণের কথা স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে। মূলত একটি জাতি নির্মাণের হওয়ার পরে একটি রাষ্ট্র গঠিত হয়। বঙ্গবন্ধুর ভাষণে কোনো বিচ্ছিন্নতাবাদ ছিল না। এবারের সংগ্রাম, মুক্তির সংগ্রাম’-তাঁর ভাষণের একটি কথায় বাঙালির জাতির স্বাধীনতার নির্দেশনা ছিল। বঙ্গবন্ধু একাই ছিলেন যুদ্ধকালীন ক্রান্তিকালের স্বপ্নদ্রষ্টা। স্বাধীনতা লাভের জন্য পুরুষ-মহিলা-নির্বিশেষে সবাইকে ঘরে ঘরে দুর্গ তোলার কথা বলেছেন। এখানে তিনি কখনও ধর্ম-বর্ণ-লিঙ্গের কোনো ভেদাভেদ করেননি।’

বিশেষ আলোচক হিসেবে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ইতিহাস ও রাজনীতির বিষয়ে সচেতন ছিলেন। তাঁর বক্তব্যের দূরদর্শিতার কারণে ৭ মার্চের ভাষণ আন্তর্জাতিক সম্পদে পরিণত হয়েছে। ৭ মার্চের ভাষণে শুধুমাত্র মুক্তিকামী মানুষের কথাই উল্লেখ ছিল না, সারা বিশ্বে যেখানে যেখানে নিপীড়ন, শোষন, বঞ্চনা চলছে-তাদের ব্যাপারে এখনও প্রাসঙ্গিক বঙ্গবন্ধুর ভাষণ।’

ভিসি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ভাষ্য মতে, গণতন্ত্র মানে হচ্ছে ন্যায্য কথা। এরজন্য কোনো সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রয়োজন নেই।’

সূচনা বক্তব্য দেন সেমিনারের সভাপতি এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. অরুণ কুমার গোস্বামী। রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক দীপক কুমার বিশ্বাস ও লুৎফুন্নাহার-এর সঞ্চালনায় ‘৭ মার্চের স্বাধীনতা ঘোষণা ও ইউনেস্কোর মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড এর স্বীকৃতি’ শীর্ষক প্রবন্ধ পাঠ করেন রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাকিবা সুলতানা রত্না। ‘বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ: একটি তাত্ত্বিক বিশ্লেষণ’ শীর্ষক প্রবন্ধ পাঠ করেন সহকারী অধ্যাপক নূরানা।

এসময় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/১১ডিসেম্বর/আইএইচ/জেবি)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত