দেশসেরা জেলা প্রশাসকের পুরস্কার নিলেন উম্মে সালমা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, ২১:১৩ | প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, ২০:৪৬

আইসিটির মাধ্যমে নাগরিক সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক বেগম উম্মে সালমা তানজিয়াকে তথ্যপ্রযুক্তি পুরস্কার দেয়া হয়েছে। ‘সুশাসনে গড়ি সোনার বাংলা’-এই স্লোগানকে সামনে রেখে জেলা প্রশাসনকে জনবান্ধব করার প্রত্যয়ে গত বছর ১৫ সেপ্টেম্বর ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক হিসেবে উম্মে সালমা তানজিয়া তার কর্মস্থলে যোগদান করেন।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এক অনুষ্ঠানে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী এ পুরস্কার তুলে দেন। এক বছরের কিছু বেশি সময় পর তিনি নাগরিকসেবায় দেশের সেরা জেলা প্রশাসক নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া আইসিটিতে অবদানের জন্য এ অনুষ্ঠানে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালকে দেওয়া হয়েছে আজীবন সম্মাননা। তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে সেবায় অবদানের জন্য বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রয়াত মেয়র আনিসুল হককে।

স্বাস্থ্য খাতে ডিজিটাল সেবায় অবদানের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ, সফটওয়্যার ইনোভেশন ক্যাটাগরিতে লিডস করপোরেশন লিমিটেড ও লিডসফট বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেখ আবদুল আজিজ এবারের তথ্যপ্রযুক্তি পুরস্কার পেয়েছেন।

আইসিটি শিক্ষায় অবদান এবং প্রযুক্তি ব্যবহারের উৎকর্ষতার বিবেচনায় শিক্ষা ক্যাটাগরিতে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কৃষকদের তথ্যসেবা দেওয়ার উদ্যোগের জন্য কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর; আইসিটির মাধ্যমে নাগরিক সেবায় অবদানের জন্য স্থানীয় সরকার ক্যাটাগরিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

আইটি খাতের ক্ষেত্রে ‘শ্রেষ্ঠ রপ্তানিকারকের’পুরস্কার পেয়েছে সার্ভিস ইঞ্জিন লিমিটেড; দি সিটি ব্যাংক লিমিটেড ‘সেরা অনলাইন ব্যাংকিং সেবা’এবং সেবা এক্সওয়াইজেড আইটি খাতের ‘সেরা স্টার্টআপ’এর পুরস্কার পেয়েছে।

এছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সাংবাদিকতার জন্য পুরস্কার পেয়েছেন চ্যানেল আইয়ের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ফরিদুর রহমান পান্থ, দৈনিক কালের কণ্ঠের প্রযুক্তি বিভাগের প্রধান মুহম্মদ খান এবং বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার উপ-প্রধান প্রতিবেদক মাহমুদুল হাসান। ডিজিটাল বাংলাদেশ অভিযাত্রায় অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ইন্টারনেটে বাংলাদেশের প্রথম সার্বক্ষণিক সংবাদ প্রকাশক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদীকে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবসে বিশেষ সম্মাননা দিয়েছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদও বক্তব্য দেন।

স্বাগত বক্তব্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগ এবং সাফল্যের কথা অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব সুবীর কুমার কিশোর চৌধুরী।

প্রসঙ্গত, ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া এর আগেও ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের শ্রেষ্ঠ জেলা প্রশাসক-২০১৭ হিসেবে স্বীকৃতি পান। শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য তাকে এই সম্মাননা দেওয়া হয়েছিল।

তিনি যোগদানের পর থেকে এই এক বছরে প্রশাসনকে জনবান্ধব করার লক্ষ্যে নানামুখী কর্মসূচি গ্রহণ করেন। জেলা ই-সেবা কেন্দ্র, ইউডিসি, হেল্পডেস্ক, জয়িতা অঙ্গন, ডিজিটাল হাজিরাসহ নানা ধরনের জনসেবামূলক কর্মসূচি চালু ও সেবার মান উন্নয়নসহ সকল ক্ষেত্রে  গতি সঞ্চয় করেন তিনি। ছাত্র-ছাত্রীদের আধুনিক ও নৈতিক শিক্ষায় সুশিক্ষিত করে গড়ে তোলার জন্য তাদের অভিভাবকদের সমন্বয়ে নানামুখী কর্মসূচি গ্রহণ করেন। ২৫০টির অধিক স্কুল ও কলেজে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম প্রতিষ্ঠা করেছেন।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া ঢাকাটাইমসকে বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে সরকার ঘোষিত ভিশন-২০২১ ও ভিশন-২০৪১ সফল করার লক্ষ্যে গুণগত জনসেবা ও জনবান্ধব প্রশাসন গড়ে তুলতে আমরা বদ্ধপরিকর। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সকল নাগরিককে ই-সেবার আওতায় আনার জন্য টিম ফরিদপুর নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

ফরিদপুর জেলার উন্নয়নের স্বার্থে সততা, স্বচ্ছতা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাবার প্রত্যয় ব্যক্ত করে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘ফরিদপুর জেলার ঐতিহ্যকে ধারণ করে বাংলাদেশের প্রথম সারির জেলায় রূপান্তরের চেষ্টা করব। ফরিদপুরের জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সাথে নিয়ে একটি টিম হিসেবে এ কাজ করে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে ই-নথি কার্যক্রমে ফরিদপুর জেলা সারাদেশের মধ্যে টানা কয়েক মাস প্রথম স্থানে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে ফরিদপুর জেলা যেন অগ্রণী ভূমিকা রাখে সে লক্ষ্যে আমার সার্বিক প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। মহান আল্লাহ আমাদের সুযোগ দিয়েছেন জনগণের সেবা করার, সেই সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, ফরিদপুরকে আরো অধিকতর সেবামূলক ও জনবান্ধব প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার জন্য জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারী দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, আধুনিক ফরিদপুরের রূপকার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন সার্বিক নির্দেশনা আমাদের এ চলার পথকে আরো সুগম ও মৃসন করেছে।

উম্মে সালমা তানজিয়া রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে কৃতিত্বের সাথে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সমাপ্ত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ১৯৯৮ সালে বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারে সহকারী কমিশনার হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় যোগদান করেন। এরপর বিভিন্ন জেলায় সহকারী কমিশনার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সিরাজগঞ্জ জেলায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩ সালের মার্চে উপ-সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এ টু আই) এ কর্মরত ছিলেন। সর্বশেষ তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

(ঢাকাটাইমস/১২ডিসেম্বর/আইএইচ/শিপন/জেডএ

সংবাদটি শেয়ার করুন

নির্বাচিত খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত