ধীরে ধীরে কমছে খুন

আশিক আহমেদ, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৮ জানুয়ারি ২০১৮, ১৭:২৩ | প্রকাশিত : ০৮ জানুয়ারি ২০১৮, ১২:৩০

দেশে অপরাধের প্রবণতা কমেছে। বিশেষ করে কমেছে খুনের পরিমাণ। সঙ্গে ডাকাতি, দস্যুতা ও অপহরণের মতো ঘটনাও আগের চেয়ে কমেছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। গত পাঁচ বছরের পরিসংখ্যানে এই তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি।

সম্প্রতি প্রকাশিত পুলিশ সদরদপ্তরের একটি পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে এই তথ্য। গত পাঁচ বছরের পরিসংখ্যানে দেখা গেছে প্রথম তিন বছরের তুলনায় বিগত দুই বছরে খুনের পরিমাণ কমেছে। বিশেষ করে ২০১৭ সালে চার বছরের তুলনায় খুনের সংখ্যা কম।  

বাংলাদেশ পুলিশ সদর দপ্তরের উপমহাপরির্দক (অপরাধ) রওশন আরা বেগম ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘পুলিশের তৎপরতা বাড়ার কারণেই দেশে অপরাধ প্রবণতা কমেছে। যেখানেই অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে পুলিশ সাথে সাথেই অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে আইনের কাছে সোপর্দ করছেন। এর কারণেই দেশের অপরাধের চিত্র তুলনামূলক কম। আর খুন বাড়া-কমাটা হচ্ছে সামাজিক ব্যাপার। কখনো মানুষ উত্তেজনার বশবর্তী হয়ে খুন করে থাকে।’

এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জিয়াউর রহমান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘খুনের সঠিক পরিসখ্যাংন আমাদের কাছে নেই। তবে পুলিশ যেহেতু দাবি করছে অপরাধ কমেছে সেটা পুলিশি তৎপরতার কারণেই কমেছে। আমাদের সামাজিক ব্যবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে সেই সঙ্গে অপরাধের ধরনের পরিবর্তন হচ্ছে। খুন, ডাকাতি, চুরির মতো ঘটনা কমলেও বাড়ছে নারী শিশু নির্যাতন, জঙ্গিবাদ, মাদকের মতো ভয়াবহ অপরাধ।’

পুলিশ সদরদপ্তরের পরিসংখ্যান

বলা হয়েছে, ২০১৩ সালে ডাকাতির ঘটনায় মামলা হয়েছে  ৬১৩টি, ২০১৪ সালে ৬৫১টি, ২০১৫ সালে ৪৯১টি, ২০১৬ সালে ৪০৮টি এবং  ২০১৭ সালে ৩৩৬টি।

২০১৩ সালে দস্যুতার ঘটনায় মামলা হয়েছে এক হাজার ২১টি, ২০১৪ সালে এক হাজার ১৫৫টি, ২০১৫ সালে ৯৩৩টি, ২০১৬ সালে ৭২২টি  এবং ২০১৭ সালে ৬৫৭টি।

২০১৩ সালে খুনের ঘটনা ঘটেছে চার হাজার ৩৯৩টি, ২০১৪ সালে চার হাজার ৫১৪টি, ২০১৫ সালে চার হাজার ৩৬টি, ২০১৬ সালে তিন হাজার ৫৯১টি এবং ২০১৭ সালে খুনের ঘটনা কমে দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ৫৪৯টিতে।

দাঙ্গার ঘটনাও তুলনামূলক কমেছে। ২০১৩ সালে সারাদেশে দাঙ্গার ঘটনা ঘটেছিল ১৭২টি। আর ২০১৪ সালে কমে দাঁড়ায় ৮৯টিতে। তবে ২০১৫ সালে দাঙ্গার ঘটনা বেড়ে দাঁড়ায় ৯৩টিতে। ২০১৬ সালে দাঙ্গার ঘটনা ঘটেছে ৫৩টি এবং সর্বশেষ ২০১৭ সালে তা কমে দাঁড়িয়েছে ২৩টি।

অপহরণের ঘটনাও তুলনামূলক কমেছে। ২০১৩ সালে অপহরণের ঘটনা ঘটেছিল ৮৭৯টি, ২০১৪ সালে ৯২০টি, ২০১৫ সালে ৮০২টি, ২০১৬ সালে ৬৩৯টি এবং ২০১৭ সালে ৫০৯টি।

২০১৩ সালে পুলিশ আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ঘটে এক হাজার ২৫৭টি, ২০১৪ সালে ৭০২টি, ২০১৫ সালে ৬৩৪টি, ২০১৬ সালে ৫২১টি এবং ২০১৭ সালে ৫৪৩টি।

২০১৩ সালে সিঁধেল চুরি হয়েছিল দুই হাজার ৭৬২টি, ২০১৪ সালে দুই হাজার ৮০৯টি, ২০১৫ সালে দুই হাজার ৪৯৭টি, ২০১৬ সালে দুই হাজার ২১৩টি এবং ২০১৭ সালে দুই হাজার ১৬৩টি।

২০১৩ সালে চুরি হয়েছিল সাত হাজার ৮৮২টি, ২০১৪ সালে সাত হাজার ৬৬০টি, ২০১৫ সালে ছয় হাজার ৮১৯টি, ২০১৬ সালে ছয় হাজার ১১০টি এবং ২০১৭ সালে পাঁচ হাজার ৮৩৩টি।

(ঢাকাটাইমস/০৭জানুয়ারি/এএ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত