রাজবাড়ীতে শৈত্যপ্রবাহে বোরো বীজতলা বিবর্ণ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৯ জানুয়ারি ২০১৮, ২০:৪০ | প্রকাশিত : ০৯ জানুয়ারি ২০১৮, ২০:৩৮
ফাইল ছবি

পদ্মাপারে টানা শৈত্যপ্রবাহে রাজবাড়ীর জনজীবনে চরম দুর্ভোগ বৃদ্ধি পেয়েছে। একইসাথে একটানা ঘন কুয়াশা ও শৈত্যপ্রবাহের কারণে এবার বোরোর বীজতলায় চারা বাড়ছে না। তা হলুদ বর্ণ ধারণ করে ধীরে ধীরে মরে যাচ্ছে। তাই দুশ্চিন্তায় পড়েছেন রাজবাড়ীর চাষিরা।

বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কৃষকনেতা মস্তোফা কামাল ও মুক্তিযোদ্ধা আ. মালেক মাস্টার। বীজতলা রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তারা কৃষি বিভাগের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

একইসাথে হিম শীতল আবহাওয়ার কারণে নারী, শিশু ও বৃদ্ধরা রয়েছেন নিদারুণ কষ্টে। তবে সবচেয়ে বেশি কষ্টের মধ্যে রয়েছেন ছিন্নমূল ও খেঁটেখাওয়া মানুষেরা। শৈত্যপ্রবাহে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে শীতের তীব্রতা। সন্ধ্যা নামার পরপরই ঘন কুয়াশায় ঢেকে যাচ্ছে রাস্তাঘাট। জনশূন্য হয়ে পড়ছে জেলা-উপজেলার বাজার এলাকাসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান।

শীতের তীব্রতা থেকে রক্ষা পেতে মানুষ খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে।

এদিকে ঠান্ডা আবহাওয়াকে কেন্দ্র করে ফুটপাতে গরম কাপড়ের কেনাবেচা বেশ জমে উঠেছে। ঠান্ডা যতই বাড়ছে ততই বাড়ছে ক্রেতাদের সমাগম।

দেখা গেছে, মঙ্গলবার সকাল থেকেই রাজবাড়ী শহরের রেলগেট সংলগ্ন পুরাতন রেল লাইনের মাঝে খোলা ভ্রাম্যমাণ বাজারে শীতবস্ত্র কিনছে শত শত মানুষ।

ফরিদপুর আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ অঞ্চলে তাপমাত্রা ছিলো ৬.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা আরো বৃদ্ধি পেতে পারে। এদিকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে গত এক সপ্তাহে ঠাণ্ডা, শীত ও ডায়রিয়াজনিত রোগে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়েছেন ২৮৪ জন শিশু ও বৃদ্ধ রোগী।

(ঢাকাটাইমস/৯জানুয়ারি/প্রতিনিধি/ওয়াইএ/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত