ভুয়া এনআইডি সূত্রে জঙ্গি আস্তানার সন্ধান

আশিক আহমেদ
নাখালপাড়া থেকে
| আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৭:০২ | প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ১২:২৩

রাজধানীর পশ্চিম নাখালপাড়ায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে যে বাড়িটিতে অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাব, তা ভুয়া এনআইডি দেখিয়ে ভাড়া নেয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। জাহিদ নামে একজন এই কক্ষটি ভাড়া নেন।

নিজেকে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকুরে জানিয়ে তার সঙ্গে ওঠা অন্য দুই জনকে ভাই পরিচয় দেন জাহিদ। এ সময় দুটি জাতীয় পরিচয়পত্রও দেয়া হয়।

পরিচয়পত্রে দুই জনের নিজের ও বাবার নাম এবং ঠিকানা আলাদা ছিল। তবে ছবি ছিল একটিই। কিন্তু যাদেরকে মেসে তোলা রুবেল এটি লক্ষ্য করতে পারেননি।

র‌্যাবের তথ্য অনুযায়ী বাড়িটির মালিক বিমানের পাইলট সাব্বির হোসেন। ছয় তলা এই বাড়ির শেষ দুটি ফ্লোর মেস হিসেবে ভাড়া দেয়া হতো। আর দুটি ফ্লোরের তত্ত্বাবধান করতেন রুবেল নামে একজন।

গত ২৮ ডিসেম্বর রুবেলকে ফোন করে জাহিদ মেসে ওঠার কথা জানান। এ সময় তাকে কিছু কাগজপত্র দিতে বলা হলেও তিনি দেননি। পরে দুই হাজার টাকা অগ্রিম দিয়ে ‘জহিদ’ ৪ জানুয়ারি তিনি বাড়িতে উঠেন এবং ৮ জানুয়ারি অপর দুই জন আসেন।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ জানান, ১৩/১ রুবি ভিলায় মেস হিসেবে ভাড়া নেয়ার সময় বাড়ির তত্ত্বাবধায়ককে জাহিদ ও সজীব নামে দুই জন তাদের জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি দেন। তেজগাঁও থাকায় জমা দেয়ার পর এনআইডি কার্ড দুটি দেখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সন্দেহ হয়।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান জানান, একটি দল ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থানে হামলার পরিকল্পনা নিয়ে শহরে অবস্থান করছে-এমন তথ্য ছিল তাদের কাছে। আর এরপর তদন্ত করতে গিয়ে এই জাল জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়া যায়। এরপর তারা এই বাড়িটিতেই ওই দলটির অবস্থানের তথ্যে অভিযান চালান।

ওই তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব সদস্যরা বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে বাড়িটিতে অভিযান চালাতে গেলে জঙ্গিরা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড ছুঁড়ে মারে। ওই সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি করলে তিন জঙ্গি নিহত হয়। আহত হয় র‌্যাবের দুই সদস্যও।

পরে আস্তানাটি থেকে দুটি ইম্প্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি), বিস্ফোরক জেল ও একটি পিস্তল পাওয়ার কথা জানায় র‌্যাব প্রধান।

বাড়িটির পাশে তুহিন নামে একজনের রিকশার গ্যারেজে আছে। সেখানে ৫০ জনের মতো রিকশাচালক রাতে ঘুমান। তাদের একজন শামীম মিয়া। সকালে তার সঙ্গে কথা হয় ঢাকাটাইমসের। তিনি বলেন, ‘অনেক গোলাগুলির শব্দে রাইতে ঘুম ভাইঙা যায়। মনে করছি, ২১ ফেব্রুয়ারির লাইগ্যা ২১ বার বুঝি গুলি হইতাছে। কিন্তু অনেক গোলাগুলির শব্দ শুইন্যা উঁকি মাইরে বাইরে তাকাই। দেহি প্রচুর র‌্যাব-পুলিশ দাঁড়ায়া আছে।’

বাড়ির মালিক সাব্বির হোসেন এই ব্যক্তিদের বিষয়ে কিছু জানাতে পারেননি। তবে ওই ফ্লাটের বাকি বাসিন্দারা র‌্যাবকে জানিয়েছে, ‘জাহিদ’ খুব ভোরেই বাসা থেকে বের হতেন আর ফিরতেন গভীর রাতে। অন্য দুই ‘জঙ্গি’দেরকে প্রতিবেশীরা কখনও বাড়ির বাইরে যেতে দেখেননি।

ঢাকাটাইমস/১২ডিসেম্বর/এএ/এএকে/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত