আট ব্যাংকে নিয়োগ: দুই কেন্দ্রে পরীক্ষার নতুন তারিখ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৫৩
ছবিটি সময় টিভি থেকে নেয়া

আসন সঙ্কটের কারণে রাষ্ট্রায়ত্ত আট ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষায় ঢাকার দুটি কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে না পারা চাকরিপ্রার্থীদের জন্য পরীক্ষার নতুন তারিখ ঠিক করেছে কর্তৃপক্ষ। আগামী ২০ জানুয়ারি বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত একই কেন্দ্রে তাদের পরীক্ষা নেওয়া হবে।

শুক্রবার বিকালে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব বাংলাদেশ ব্যাংকের মহা ব্যবস্থাপক মো. মোশাররফ হোসেন খান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আসন সঙ্কটা নিয়ে গোণ্ডগোলের কারণে আজ শুক্রবার নির্ধারিত দিনে মিরপুর বাংলা কলেজ কেন্দ্রে চার হাজার এবং মিরপুর শাহ আলী মহিলা কলেজ কেন্দ্রে ১৬০০ চাকরিপ্রত্যাশীর পরীক্ষা দিতে পারেননি।

মো. মোশাররফ হোসেন খান বলেন, ব্যবস্থাপনার ত্রুটিতে আসন সঙ্কটের কারণে এ জটিতার সৃষ্টি হয়। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটির জরুরি বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, ২০ জানুয়ারি বিকাল সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৪টা একই কেন্দ্রে তাদের পরীক্ষা নেওয়া হবে। এই সিদ্ধান্ত অন্য কেন্দ্রের পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব ফেলবে না।”

তিনি আরও বলেন, “২০ তারিখ আমি নিজে উপস্থিত থেকে সব দিক তদারকি করব।”

প্রসঙ্গত, অনেক নাটক আর বিতর্কের পর দেশের সরকারি আট ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ‘সিনিয়র অফিসার’ পদে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে আজ শুক্রবার। কিন্তু আলোচিত এই পরীক্ষার বিতর্ক পিছু ছাড়েনি। পরীক্ষা অনুষ্ঠানে নানা অব্যবস্থাপনার অভিযোগ করেছেন পরীক্ষার্থীরা। কেন্দ্রে আসন বিন্যাস না করা, প্রশ্নপত্র সময়মতো না পাওয়া, এক বেঞ্চে দুজনের জায়গায় পাঁচজন বসানোসহ নানা অব্যবস্থাপনায় কেন্দ্রে বিক্ষোভ-ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটেছে।

 

পরীক্ষা নিয়ে রীতিমতো প্রহসন করা হয়েছে বলেও অভিযোগ পরীক্ষার্থীদের। হেমায়েত উদ্দিন নামের এক পরীক্ষার্থী জানান, কেন্দ্রগুলোতে আসন বিন্যাস নেই। যে যার মতো বসেছে। বসতে না পেরে অনেক জায়গায় মারামারি হয়েছে। পরীক্ষার নির্ধারিত সময় ছিল সাড়ে তিনটা, কিন্তু কোথাও কোথাও পৌনে চারটাতেও পরীক্ষার্থীদের হাতে প্রশ্ন যায়নি। মোবাইল ফোন নিয়ে অনেকে পরীক্ষার হলে গেছেন। যে যার মতো ছ‌বি তুলে‌ছেন। আসন না পেয়ে অনেকে বিক্ষোভ করেছেন।

পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মাত্র ৪০-৫০ জনের রুমে ১০০-১৫০ জনের বসার ব্যবস্থা করা হয়। তারপরও সবার জন্য আসন দিতে পারেনি কলেজ কর্তৃপক্ষ। এরপর ক্ষুব্ধ পরীক্ষার্থীরা কলেজের জানালা-দরজা ভাঙচুর করেন।

(ঢাকাটাইমস/১২জানুয়ারি/ ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত