ধন্যবাদ ৯৯৯

পিকলু চৌধুরী
| আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ২৩:০০ | প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ২২:৫৬

গুলশান এক নাম্বারে এই বাচ্চাটিকে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে এক দম্পতি পরিবার। বাচ্চাটি বাসা খুঁজে পাচ্ছে না, কান্নাকাটি করছিলো। পরম মমতায় দম্পতি পরিবার জানার চেষ্টা করছিলেন বাচ্চার নাম, বাবা, মায়ের নাম এবং ঠিকানা। কিছু কিছু তথ্য বাচ্চাটি দিলেও বাসা ঠিক কোথায় বলতে পারছে না শুধুমাত্র লোকেশন ছাড়া। এর মধ্যে আরেক দম্পতি পরিবার আসে তাদের সাহায্য করতে। পুলিশের একজন সদস্যও আসে। কিন্তু সে বাচ্চাটিকে নিয়ে লোকেশনে যেতে পারছে না ডিউটি স্থান রেখে, যা আমাদের কাছে যৌক্তিক মনে হয়েছে।

আমার হঠাৎ ‘৯৯৯’ এর কথা মনে হলো। কল দিলাম, তারা ডিটেইলস শুনলেন এবং গুলশান পুলিশকে জানালেন। আমাদের অবাক করে দিয়ে গুলশান থানার ইনভেস্টিগেশন অফিসার সালাউদ্দিন কল দিলেন মাত্র ১ মিনিটের মাথায়। তিনি জানালেন গাড়ি পাঠানো হয়েছে একজন এসআইসহ। বাচ্চাটির পরিবারকে খুঁজে পেতে সব ধরনের চেষ্টা তারা করবেন। আরো অবাক করে দিয়ে কিছুক্ষণের মধ্যেই পুলিশের গাড়ি আসলো এবং বাচ্চাটিকে বুঝে নিলো।

বাচ্চার বাবা মাকে খুঁজে পেয়েছে পুলিশ এবং তাদের কাছে বুঝিয়ে  দেওয়া হয়েছে বাচ্চাটিকে।

এই লেখাটির কারণ হলো, আগে শুনতাম আমেরিকা ইউরোপে এই ধরনের সুবিধা পায় তাদের নাগরিকরা আর এখন আমরাই সেই সুবিধা পাচ্ছি খুব দ্রুত সময়ে

ধন্যবাদ "" ৯৯৯ ""

ধন্যবাদ "" বাংলাদেশ পুলিশ ""

ধন্যবাদ "" মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ""

আর দম্পতি পরিবার দুইটিকে বিশেষ ধন্যবাদ তাদের মানবিক আচরণের জন্য। আপনারা আছেন বলেই আমরা এখন আলোর দেখা পাই

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফেসবুক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত