যে কারণে উবারমটো ব্যবহার করবেন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযু্ক্তি প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৭ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:২৮

দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার ভারত, ইন্দোনেশিয়া ও ভিয়েতনামের বেশ কিছু শহরে উবারমটো সার্ভিস শুরু করার পর সে সব শহরের যাতায়াত ব্যবস্থা আরও সহজ হয়ে উঠছে। ফলে উবারমটোর জনপ্রিয়তা বেড়েছে।

সাশ্রয়ী মুল্যের যাতায়াত মাধ্যম হওয়ায় সম্প্রতি ঢাকাতেও মোটরসাইকেল ব্যবহারকারীদের সংখ্যা দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঢাকাতে বাইকশেয়ারিং সম্পর্কে কম বেশি অনেকেই জানেন। অনেক দেশীয় সংস্থাও এখন রাইডশেয়ারিং সার্ভিস শুরু করছে।

ঢাকায় যাতায়াত করার জন্য কোন সার্ভিস ব্যবহার করবেন এখনও বুঝে উঠতে পারছেন না। তাহলে উবারমটোর পাঁচটি ফিচার সম্বন্ধে জানুন। এগুলো আপনার চিন্তা দূর করে উবারমটো ব্যবহারে আপনাকে উদ্বুদ্ধ করবে।

নিরাপত্তাই প্রথম শর্ত

আইন অনুযায়ী, মোটরসাইকেলে ভ্রমণের সময় হেলমেট পরা বাধ্যতামূলক। বাইকশেয়ারিং করার সময় হেলমেট পরার বিষয়টি উবার নিশ্চিত করে। এছাড়াও উবারমটোতে আপনি পাবেন ‘শেয়ার স্ট্যাটাস’, লাইভ জিপিএস ট্র্যাকিং, ভেরিফাইড পার্টনার এবং টু-ওয়ে ফিডব্যাক সিস্টেম –এর মতো ফিচারসমূহ।

যাতায়াত করার সময় উবারের ‘শেয়ার স্ট্যাটাস’ এবং ‘লাইভ জিপিএস ট্র্যাকিং’ ফিচার আপনার আপনজনদের নিশ্চিন্তে রাখে। এই ফিচারের সাহায্যে আপনি নিজেই দেখতে পারবেন যে আপনি কোথায় যাচ্ছেন এবং কোন পথ দিয়ে যাচ্ছেন। উবারের অ্যাপে ন্যাশনাল হেল্পলাইন নম্বর ৯৯৯ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

জরুরি প্রয়োজনে অ্যাপ থেকেই আপনি হেল্পলাইন নম্বরে কল দিতে পারবেন এবং নিয়োজিত প্রতিনিধিরা তৎক্ষণাৎ আপনার সাহায্যার্থে এগিয়ে আসবে। এই হেল্পলাইনের মাধ্যমে আপনি অ্যাম্বুলেন্স (১ ডায়াল করুন), ফায়ার সার্ভিস (২ ডায়াল করুন), পুলিশ (৩ ডায়াল করুন) অথবা সরাসরি সরকারি কর্মকর্তাদের (০ ডায়াল করুন) সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

টু-হুইলারের আধিপত্য
আপনি কি টু-হুইলারে ভ্রমণ করতে পছন্দ করেন কিন্তু কখনো ভ্রমণের সুযোগ হয় নি? এবার তাহলে এই অপশনটি আপনার আশা পূরণের সময় এসেছে। বাজারের সর্বাধুনিক মোটরসাইকেলগুলো এখন উবারমটোর সাথে যুক্ত আছে। উবারের সাথে যে সব মোটরসাইকেল যুক্ত হয়েছে তার মধ্যে আপনি পাবেন হিরো গ্ল্যামার, হোন্ডা ড্রিম নিও, হোন্ডা সিবি ট্রিগার ইত্যাদি।

দ্রুত এবং সাশ্রয়ী
আপনার কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যে পৌঁছাতে পুরোটা পথ অথবা কিছুটা অংশে উবারমটো ব্যবহার করতে পারেন এবং সেক্ষেত্রেও ভাড়া নিয়ে কোনোরূপ বাকবিতণ্ডার প্রয়োজন হবে না। উবার অ্যাপে ভাড়া নির্ধারণ করা হয় সময় (প্রতি মিনিট ১ টাকা) এবং যতটুকু দূরত্ব ভ্রমণ করবেন (প্রতি কি.মি. ১২ টাকা) তার উপর। সাথে যুক্ত থাকে ‘বেস ফেয়ার’। যার ফলে উবারমটো ব্যবহার করা অত্যন্ত সাশ্রয়ী।

প্রত্যেক রাইডের জন্য একই ফিচার

উবারের অন্যান্য সার্ভিসের মতো উবারমটোতেও আপনাকে আপনার কাঙ্ক্ষিত স্থান থেকে পিক করা হবে। উবারমটোতে ভ্রমণের সময় উবার অ্যাপের সকল ফিচার আপনি উপভোগ করতে পারবেন। রেটিং সিস্টেম, জিপিএস ট্র্যাকিং, ন্যাশনাল হেল্পলাইন ৯৯৯ এবং ট্রিপের বিস্তারিত তথ্যের মতো ফিচার আপনার উবারমটোতে ভ্রমণের অভিজ্ঞতা আরও নির্ভরযোগ্য করে তুলবে।

কিছু পরামর্শ
মোটরসাইকেল চালানোর সময় ভারসাম্য ঠিক রাখা অত্যন্ত জরুরি। বসার সময় খেয়াল রাখুন যেন ঠিক মাঝ বরাবর বসেছেন যাতে ভারসাম্য বজায় থাকে এবং হেলমেটটি পরে নিন। সতর্কতার সাথে বসুন এবং রাইডটি উপভোগ করুন।

(ঢাকাটাইমস/১৭জানুয়ারি/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত