‘নিপীড়নকারী’ ছাত্রলীগ কর্মীদের বহিষ্কার দাবিতে অবরুদ্ধ ঢাবি প্রক্টর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৭ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:৪৮ | প্রকাশিত : ১৭ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:৫৮

সরকারি সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে শিক্ষার্থীদের কর্মসূচিতে ছাত্রীদের ওপর ছাত্রলীগের নিপীড়নের অভিযোগ এনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরকে নিজ কক্ষের সামনে ঘেরাও করে রেখেছে আন্দোলনকারীরা।

নিপীড়নে ‘জড়িত’ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদেরকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বহিষ্কারের দাবি জানাচ্ছেন আন্দোলনকারীরা। একই সঙ্গে কর্মসূচিতে ‘হামলার’ সুষ্ঠু তদন্ত এবং গ্রেপ্তার মশিউর রহমান সাদীকে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানাচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

সাত কলেজেল অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে গত সোমবার ক্লাস বর্জন করে নানা কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা। কিন্তু ছাত্রলীগ এই কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন তারা। সেদিন কর্মসূচিতে অবস্থান নেয়া মেয়েদেরকে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে।

একই দিন শিক্ষার্থীরা কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিলে সেথান থেকে মশিউরকে কার্যালয়ের ভেতর নিয়ে যান ছাত্রলীগের নেতারা। পরে তাকে নেওয়া হয় শাহবাগ থানায়।

সোমবার থেকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নতুন দাবি যুক্ত হয়। আর আজ অধিভুক্তি বাতিলের পাশাপাশি সেদিনের কর্মসূচিতে হামলার বিচার দাবিতে শিক্ষার্থীরা বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে। পরে দুপুরে তারা প্রক্টর অফিস ঘেরাও করে।

প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানী এ সময় নিজ কক্ষে আটকা পড়েন।

 

ছাত্ররা প্রক্টর অফিসের ফটকে তালা দেওয়া দেখে তা ভেঙে ফেলার পর প্রক্টর তার কক্ষ থেকে বেরিয়ে এসে কলাভবনের গেইটে ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলেন।

তবে প্রক্টর সেদিন শিক্ষার্থীদের কর্মসূচিতে  ছাত্রলীগের ‘হামলা’এবং মেয়েদের নিপীড়নের বিষয়ে কিছু বলেননি। সেদিন ছাত্রলীগকে নিবৃত্ত করতে কর্তৃপক্ষে কেন নীরব ছিল সেই প্রশ্নও তার কাছে রাখেন শিক্ষার্থীরা। কিন্তু তিনি কোনো জবাব দেননি।

ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে প্রক্টর চলে যাওয়ার চেষ্টা করে শিক্ষার্থীদের বাধার মুখে পড়েন। তারা প্রক্টরের পথরোধ করে তার অফিসের গেইটের সামনে বসে পড়েন। এরপর প্রক্টর নিজের কক্ষে যান।

আধা ঘণ্টা পর প্রক্টর আবার বেরিয়ে এসে এক সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু এটা মেনে নিতে রাজি না হয়ে ‘না’, ‘না’ বলে প্রতিবাদ জানায় শিক্ষার্থীরা।

ঢাকাটাইমস/১৭জানুয়ারি/এনএইচএস/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত