সিসিইউতে ২৪ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে মেয়র আইভী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ২০:২৪ | প্রকাশিত : ১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ২০:১৩

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীকে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিউইতে) ২৪ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা এখন স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে আইভীর চিকিৎসার জন্য পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। ডা. বরেন চক্রবর্তীর নেতৃত্বে চিকিৎসকরা তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এহতেশাম।

ডা. বরেন চক্রবর্তীর নেতৃত্বে প্রফেসর আব্দুর জাহেদ, ডা. মাহবুবুল ইসলাম,  ডা. সোহরাব উদ জামান ও ডা. মাহবুবুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত পাঁচ সদস্যের চিকিৎসক বোর্ড তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছেন।

এহতেশাম বলেন, ‘ডাক্তার জানিয়েছেন মেয়র মহোদয় এখন শঙ্কামুক্ত আছেন। তাকে ২৪ ঘণ্টা অবজারভেশনে রাখা হয়েছে। সিসিইউ-১ এ তাকে এখন ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়েছে।’

নারায়ণগঞ্জ সিটির এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এনজিওগ্রামে তেমন কিছু ধরা পড়েনি বলে ডাক্তাররা জানিয়েছেন। শরীরের আঘাত ও আজকে হঠাৎ বমি হওয়ার বিষটি গুরুত্ব দিয়ে তার নিউরোলজির কোনো সমস্যা আছে কি না তা দেখা হচ্ছে বলে আমাকে জানান।’

বৃহস্পতিবার বিকাল তিনটার দিকে নারায়ণগঞ্জের মেয়র আইভী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে দ্রুত ঢাকার ল্যাবএইড হাসপাতালে আনা হয়।

সূত্র জানায়, আজ বিকালে মেয়র তার নিজ কার্যালয়ে একজন সাংবাদিকের সঙ্গে আলাপকালে হঠাৎ বমি বমি ভাব অনুভব করেন। এরপর তিনি ওয়াশরুমে গিয়ে বমি করেন। সিটি করপোরেশনের মেডিকেল অফিসার গোলাম মোস্তফা প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পরও অবস্থা অবনতি দেখলে তাকে ঢাকায় আনা হয়।

প্রসঙ্গত, গত কয়েক বছর ধরেই নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগের সাংসদ শামীম ওসমানের সঙ্গে ওই এলাকার মেয়র আইভীর সম্পর্কে টানাপোড়ন চলছিল। গত ২৭ দিন ধরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে এই টানাপোড়েনে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

এদিকে উচ্ছেদ হওয়া হকারদের সভায় সংহতি প্রকাশ করে গত সোমবার বিকালে চাষাঢ়ায় পুনরায় হকারদের বসানোর জন্য নারায়ণগঞ্জ ডিসি, এসপি ও ব্যবসায়ী সংগঠন চেম্বারকে মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত সময় দেন শামীম ওসমান।

শামীমের এই আলটিমেটামের পাল্টা উত্তর দেন মেয়র আইভী। তবে শামীমের আলটিমেটাম মেনে নির্ধারিত সময় পরে গত মঙ্গলবার হকাররা চাষাঢ়ায় অবস্থান নেন।

হকাররা যেন বসতে না পারে এজন্য মেয়র আইভীও তার প্রশাসন ও ব্যক্তিগত লোকজন নিয়ে চাষাঢ়ার কাছাকাছিতে অবস্থান নেন। এক সময় শামীম সমর্থক ও হকারদের সঙ্গে মেয়র আইভী ও তার লোকজনের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে সাংবাদিকসহ শতাধিক আহত হন।

এই সংঘর্ষে আইভীর সমর্থকরা তাকে মানব দেয়াল দিয়ে রক্ষার চেষ্টা করেন। সংঘর্ষের বিষয়ে আইভীর পক্ষ থেকে জানানো হয় ওই ঘটনায় তিনি শারীরিকভাবে আহত হয়েছেন।

(ঢাকাটাইমস/১৮জানুয়ারি/এএকে/এসও/ইএস/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত