দিনে পড়ান, রাতে গাড়িতে আগুন দেন এক শিক্ষক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৯ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:০১ | প্রকাশিত : ১৯ জানুয়ারি ২০১৮, ১৮:৫৮

তিনি শিক্ষক। দিনের বেলা ছাত্র পড়ান। আর রাতের বেলা গাড়িতে আগুন লাগিয়ে মজা পান।স্বচ্ছল পরিবারের এবং উচ্চশিক্ষিত এক যুবকের এ হেন আচরণ দেখে হতবাক পুলিশ। বিস্মিত পাড়া পড়শিও।

পুলিশ জানিয়েছে, ডা. অমিত গায়েকোয়াড় নামে ৩৭ বছর বয়সী ওই যুবক কর্নাটকের কালাবুরাগি জেলার বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি বেলাগাভির সদাশিবনগরে থাকেন। বেলাগাভি ইনস্টিটিউট অব মেডিকাল সায়েন্স (বিআইএমএস) কলেজের প্যাথোলজি বিভাগে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কাজ করেন অমিত।

একটি সংবাদ সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে ২০টি গাড়ি জ্বালিয়েছেন অমিত। আর সবকটি ঘটনাই ঘটেছে কালাবুরাগি এবং বেলাগাভির আশপাশেই।

পুলিশ জানিয়েছে, ১৩, ১৪ এবং ১৫ জানুয়ারি কালাবুরাগিতে ৯টির বেশি গাড়িতে আগুন লাগিয়েছিলেন তিনি। ১৭ তারিখ রাতে বেলাগাভির যাদবনগরে একসঙ্গে সাতটি গাড়ি জ্বালিয়ে দেন। গত বুধবার রাতে, আবার একটি গাড়িতে আগুন লাগাতে গিয়েছিলেন অমিত। সেই সময় পুলিশ তাকে ধরে ফেলে।

কীভাবে সামনে এল এই ঘটনা?

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগ জমা হচ্ছিল বহুদিন ধরেই। পুলিশ এ বিষয়ে খোঁজ-খবর রাখছিল। কিন্তু কীভাবে গাড়িতে আগুন লাগছে তার সঠিক কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। গত বুধবার রাতে, টহল দেয়ার সময় মাথায় হেলমেট পড়ে একজনকে গাড়িতে উঠতে দেখে সন্দেহ হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, সেই সময় গাড়িটিতে আগুন লাগাতে যাচ্ছিলেন অমিত। ঠিক সময় তাকে ধরে ফেলা হয়। তবে জেরার তিনি কিছুই বলেননি বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

কীভাবে ওই কাণ্ড ঘটাতেন তিনি?

তদন্তকারী এক কর্মকর্তার কথায়, খুবই চতুরতার সঙ্গে ওই কাজ করতেন তিনি। রাত তিনটা থেকে চারটার মধ্যে বাড়ি থেকে বের হতেন। রাস্তার সিসিটিভি ক্যামেরা থেকে নিজেকে আড়াল করতে মাথা ঢাকা জ্যাকেট পরে নিতেন।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের দাবি, মানসিক অসুস্থতা থেকেই ওই কাজ করতেন অমিত।

(ঢাকাটাইমস/১৯জানুয়ারি/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত