ইবিতে অভিযুক্তদের ছিনিয়ে নেয়া হলো পুলিশ থেকে

ইবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:০৪

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে দুই ছাত্রলীগ কর্মী ও এক বহিরাগতকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর পুলিশে দিলে  ছাত্রলীগ কর্মীদের ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে।

রবিবার বিকালে মাতাল অবস্থায় প্রক্টর তাদের আটক করে পুলিশে দিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ কর্মী ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত তাদের ছিনিয়ে নেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ক্যাম্পাসের মফিজ লেক এলাকায় তিন ছাত্রী বেড়াতে যান। এসময় ওই এলাকায় বহিরাগত মুহাইমিনুল ইসলাম লামন, ছাত্রলীগ কর্মী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ইমতিয়াজ এবং ইংরেজি বিভাগের ইউসুফ ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করেন। এতে ছাত্রীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড. মাহবুবর রহমানকে মোবাইলে জানান। খবর পেয়ে প্রক্টর তাদের আটক করেন। পরে তাদের খালেদা জিয়া হলের সামনে পুলিশের হাতে তুলে দিচ্ছিলেন প্রক্টর। এসময় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত তার কর্মী বিপুল, তুষার, অনিক, ইমনসহ কয়েকজনকে নিয়ে যান। এসময় তারা ইমতিয়াজ ও ইউসুফকে ছিনিয়ে নেন। আটক মুহাইমিনুল ইসলাম লামনকে পুলিশ থানায় নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা আরাফাত বলেন, পুলিশের সাথে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। আমার অনুসারী ইউসুফ আর ইমতিয়াজকে আটক করেছে শুনে আমি সেখানে গিয়েছিলাম। বহিরাগত লামনকে থানায় দিয়ে আমার কর্মীদের নিয়ে এসেছি।

ইবি থানার উপ-পরিদর্শক কমলেশ দাশ বলেন, আটকদের নিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকজন এসে দুজনকে ছিনিয়ে নেয়। আমি একা তাদের সামলাতে পারিনি।

এ বিষয়ে প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ঠেকাতে বদ্ধপরিকর প্রশাসন। ক্যাম্পাসে সবধরনের অপকর্ম কঠোর হস্তে দমন করা হবে।

(ঢাকাটাইমস/২১জানুয়ারি/প্রতিনিধি/ওআর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত